দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে ৬৯ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ

সারাদিনে খেলা হয়েছে ৬৫ ওভার। তাতে বাংলাদেশ চার উইকেট হারিয়েছে। আগের দিনের ২ ওভারসহ প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ এখন ৪ উইকেটে ১৭৯ রান।

সারাদিনে খেলা হয়েছে ৬৫ ওভার। তাতে বাংলাদেশ চার উইকেট হারিয়েছে। আগের দিনের ২ ওভারসহ প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ এখন ৪ উইকেটে ১৭৯ রান। পড়ন্ত বিকেলে নামা বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছে চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিনের খেলা। ২৫ ওভার কম খেলা হয়েছে এদিন। লক্ষ্য পূরণ বা পূরণে ব্যর্থতার প্রসঙ্গটা তাই দ্বিতীয় দিনে সেভাবে আসছে না। সারাদিনে খেলা হয়েছে ৬৫ ওভার। তাতে বাংলাদেশ চার উইকেট হারিয়েছে। আগের দিনের ২ ওভারসহ প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ এখন ৪ উইকেটে ১৭৯ রান। দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে ৬৯ রানে পিছিয়ে স্বাগতিকরা।

কিছুটা রয়ে সয়ে ব্যাট করায় বাংলাদেশের রান রেটটা (২.৬৭) খুব ভালো দেখাচ্ছে না। তবে ম্যাচের দাবি অনুযায়ী ব্যাটিং করেছে স্বাগতিকরা এতে সন্দেহ নেই। তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহর জোড়া হাফ সেঞ্চুরিতে বৃষ্টি ভেজা বিকেলে স্বস্তি নিয়েই ড্রেসিংরুমে গিয়েছে টাইগাররা। মুশফিক ১৬ ও সাকিব ১ রানে ব্যাট করছেন।

আগের দিন বিনা উইকেটে ৭ রান করা বাংলাদেশের দ্বিতীয় দিনের সকালটা শুরু হয়েছিল ময়শ্চারের কারিকুরি, ডেল স্টেইন-মরকেলদের গতি, সুইংয়ের জালে পথ হারানোর ভয় নিয়ে। কিন্তু তামিম-ইমরুলের ব্যাটিং দৃঢ়তা প্রথম ঘণ্টায় রীতিমতো নিষ্ক্রিয় করে রেখেছিল প্রোটিয়া পেসারদের। দুই ওপেনারের ব্যাটে বড় রানের ভিত পাওয়ার আশা জেগেছিল। জুটি ভাঙতে আমলা দ্বারস্থ হন স্লো বোলারদের।

মিডিয়াম পেসার ভ্যান জাইল সাফল্য এনে দেন সফরকারীদের। ফ্লিক খেলতে গিয়ে পায়ের নিয়ন্ত্রণ হারান ইমরুল। এর ফাঁকেই স্ট্যাম্পিংয়ের কাজ সম্পন্ন করেছেন উইকেটকিপার কুইন্টন ডি কক। ইমরুল ২৬ রান করেন। ৪৬ রানে ইমরুলের বিদায়ের পর আসা মুমিনুল উইকেটে থিতু হতে পারেননি। হার্মারের বলে কাট খেলতে গিয়ে বোল্ড হন মুমিনুল (৬)।

৫৫ রানে দুই উইকেট হারানো টাইগারদের পথ দেখায় তামিম-মাহমুদউল্লাহর তৃতীয় উইকেট জুটি। লাঞ্চের আগে আর অঘটন হতে দেননি তারা। প্রথম সেশনে ৭৩ রান করে টাইগাররা। দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেও উইকেট পেতে প্রাণান্ত চেষ্টা করেছেন স্টেইন। আবারও স্টেইন-ফিল্যান্ডারদের হতাশ করেছেন তামিমরা। তিনি ১৮তম হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। চা বিরতির তিন ওভার আগে মনোসংযোগে চিড় ধরে তামিমের। সুইপ খেলতে গিয়ে বাঁহাতি স্পিনার ডিন এলগারের বলে বোল্ড হয়েছেন তিনি। ৫৭ রান করেন লোকাল বয়।

তাদের জুটিটা থামে ৮৯ রানে। যা প্রোটিয়াদের বিপক্ষে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের জুটি। ১২তম হাফ সেঞ্চুরি করা মাহমুদউল্লাহ চা বিরতির আগের সময়টা কাটিয়ে দেন মুশফিককে নিয়ে। এই সেশনেও ৭৩ রান তোলে টাইগাররা।

মাহমুদউল্লার ব্যাটে এদিন দেখা দিয়েছিল বিশ্বকাপের ছন্দ। অফ সাইডে স্টেইন, মরকেলদের বিরুদ্ধে দারুণ সব আত্মবিশ্বাসী শট খেলেছেন তিনি। সেঞ্চুরিটাও খুব কাছে মনে হয়েছিল। কিন্তু দলীয় ১৭৮ রানে ফিল্যান্ডারের বলে এলবির ফাঁদে পড়েন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। ১০টি চারে ৬৭ রান করেন তিনি। মাহমুদউল্লাহ আউট হওয়ার চার বল পরই নামে বৃষ্টি। এক ঘণ্টা বিরতি দিয়ে খেলা শুরু হলেও সেটি স্থায়ী হয়েছে এক বল। তারপরও আবার নামা বৃষ্টি আর বুধবার খেলা মাঠে গড়াতে দেয়নি। বিকেল পাঁচটার আগে দ্বিতীয় দিনের খেলা পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়। দক্ষিণ আফ্রিকার ফিল্যান্ডার, হার্মার, ভ্যান জাইল ও এলগার একটি করে উইকেট নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *