অনুপ্রবেশকারী ১০৮ রোহিঙ্গা আটক

কক্সবাজার জেলার উখিয়া উপজেলার বালুখালী সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশকারী ১০৮ রোহিঙ্গাকে আটকের ঘটনার জেরে শুক্রবার সকালে দালাল ও বিজিবি'র মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।

কক্সবাজার জেলার উখিয়া উপজেলার বালুখালী সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশকারী ১০৮ রোহিঙ্গাকে আটকের ঘটনার জেরে শুক্রবার সকালে দালাল ও বিজিবি'র মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।কক্সবাজার জেলার উখিয়া উপজেলার বালুখালী সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশকারী ১০৮ রোহিঙ্গাকে আটকের ঘটনার জেরে শুক্রবার সকালে দালাল ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।

এতে বিজিবির বিওপি কমান্ডার গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে শাহ আলমগীর নামে এক ‘দালাল’কে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিজিবি।

বিজিবি কক্সবাজার সেক্টর কমান্ডার কর্নেল খালেকুজ্জামান জানান, সকালে ওই সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশকালে ১০৮ রোহিঙ্গাকে আটক করেন বিজিবির বালুখালী বিওপির সদস্যরা। এ সময় রোহিঙ্গাদের আশ্রয়দানকারী পানবাজার এলাকার দালালরা বিজিবিকে বাধা দেয়। এতে দালাল ও বিজিবির মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এক পর্যাযে দু’পক্ষের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এতে বিজিবির সুবেদার ফজলুল হক গুলিবিদ্ধ হয়।

তিনি জানান, খবর পেয়ে কক্সবাজার সেক্টর থেকে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। দুপুর ১২টার দিকে পরিস্থিতি শান্ত হয়। আহত বিজিবি সদস্যকে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আটক রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। এ ঘটনায় শাহ আলমগীর নামে এক দালালকে আটক করা হয়েছে বলে জানান কর্নেল খালেকুজ্জামান।

তিনি জানান, স্থানীয় কিছু দালাল প্রতিনিয়ত রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে প্রবেশে সহযোগিতা করে। তারা বিজিবির কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করে।

সংঘর্ষ চলাকালে বিজিবি চার রাউন্ড গুলিবর্ষণ করেছে বলে স্বীকার করেছেন কর্নেল খালেকুজ্জামান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *