লন্ডনে থাকা তারেক গাড়ি পোড়ানো মামলায় আসামি!

২০০৮ সালের সেপ্টেম্বর থেকে প্রায় ৮ বছর লন্ডনে বসবাস করা বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ৩২ জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ।

২০০৮ সালের সেপ্টেম্বর থেকে প্রায় ৮ বছর লন্ডনে বসবাস করা বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ৩২ জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ।২০০৮ সালের সেপ্টেম্বর থেকে প্রায় ৮ বছর লন্ডনে বসবাস করা বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ৩২ জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ।

নাশকতা ও অর্থ যোগানের মামলায় তারেক রহমান, বরখাস্ত হওয়া গাজীপুরের মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নানের ছেলে মুঞ্জুরুল আহসান রনিসহ ৩২ জনের নামে অভিযোগপত্র তৈরি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার জয়দেবপুর থানার একটি মামলার অভিযোগপত্রটি গাজীপুর আদালতে পাঠানোর বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করা হয়।

ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ জানান, চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি জয়দেবপুর থানার মনিপুর এলাকার তারেক জিয়া মোড় এলাকায় এজাহার নামীয় ১৮ জন এবং অজ্ঞাত আরো ৪০-৫০ জন আসামি লাঠিসোটা ও বিভিন্ন অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সড়ক অবরোধ করে এবং রাস্তার পাশে পার্কিং করা অবস্থায় একটি বাসে অগ্নিসংযোগ করে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে জয়দেবপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে মামলাটি তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্ত করে সাক্ষ্য প্রমাণ ও মামলা পর্যালোচনা করে তারেক রহমান ও অপর আসামিদের সংশ্লিষ্টতা পান।

পুলিশ সুপার আরো জানান, মামলাটির তদন্তে জানা গেছে ২০ দলীয় জোট নেতা তারেক রহমান তার ব্যাক্তিগত সহকারি ব্যবসায়ী লুৎফর রহমান বাদল ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বরখাস্ত হওয়া গাজীপুরের মেয়র এম এ মান্নানের ছেলে মুঞ্জুরুল আহসান রনিদের নিয়ে লন্ডনে বৈঠক করে। ওই বৈঠকে নাশকতা ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে ও সরকারের পতন তরান্বিত করার নির্দেশ, উস্কানি ও অর্থ যোগান দেয়া হয়।

অভিযোগ নামীয় অপর জোট নেতারা হলেন-মোতালেব মেম্বার, আমিনুল ইসলাম, রমজান আলী, শামীম, আজাহার, সোহেল, ইমরান, লাবলু মিয়া, হালিম সিকদার, জব্বার, এরশাদুলসহ নামোল্লখ ২৯ জন।

মামলায় ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক এনামুল হক জয়দেবপুর থানায় অভিযোগপত্র নং ৯৩৯, তারিখ ২৫ আগস্ট ২০১৫ আদালতে দাখিল করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *