হেফাজতের নায়েবে আমির মুফতি ইজহার গ্রেফতার

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নায়েবে আমির ও ইসলামী এক্যজোটের একাংশের চেয়ারম্যান মুফতি ইজহারুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশ।

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নায়েবে আমির ও ইসলামী এক্যজোটের একাংশের চেয়ারম্যান মুফতি ইজহারুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশ।হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নায়েবে আমির ও ইসলামী এক্যজোটের একাংশের চেয়ারম্যান মুফতি ইজহারুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশ।

শুক্রবার দুপুর তিনটার দিকে লালখানবাজার জামেয়াতুল উলুম আল ইসলামিয়া মাদ্রাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে নগরীর বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম) দেবদাস ভট্টাচার্য তাকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মুফতি ইজহারুল ইসলামকে নগরীর লালদীঘিপাড়ের গোয়েন্দা কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়েছে।

চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার এস এম তানভীর আরাফাত বলেন, তার বিরুদ্ধে থাকা মামলাগুলো যাচাই বাছাই করে দেখা হচ্ছে।

মুফতি ইজহারের পরিচালিত লালখানবাজার মাদ্রাসার ছাত্রাবাসে ২০১৩ সালের ৭ অক্টোবর এক বোমা বিস্ফোরণে তিনজন নিহত হন।

বিস্ফোরণের পর ওই ছাত্রাবাস থেকে হাত বোমা, তাজা গ্রেনেডসহ আরও বিস্ফোরক উদ্ধার করে ডিবি। একইদিন রাতে মাদ্রাসা সংলগ্ন মুফতি ইজহারের বাসায় অভিযান চালিয়ে ১৭ বোতল এসিড উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘটনায় মাদ্রাসার পাঁচ ছাত্র গুরুতর আহত হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিন জন মারা যায়।

এই ঘটনায় ২০১৩ সালের ১০ অক্টোবর হত্যা, এসিড ও বিস্ফোরক আইনে পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করে খুলশী থানা পুলিশ। প্রত্যেক মামলায় মুফতি ইজহারকে প্রধান আসামী করা হয়।

এরমধ্যে হত্যা ও বিস্ফোরক মামলায় মুফতি ইজহারের ছেলে মুফতি হারুন ইজহারসহ ১০ জন করে আসামী করা হলেও এসিড মামলায় শুধুমাত্র পিতা-পুত্রকেই আসামী করা হয়।

তবে এর আগে মুফতি ইজহারুল বলেছেন,ওই বিস্ফোরণের সাথে তাদের কোনো সম্পর্ক নেই। সেটা ছিল নাশকতা।

২০১৪ সালের বিভিন্ন সময়ে এসব মামলায় আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। এরমধ্যে ঘটনার কয়েক দিনের মধ্যেই মুফতি হারুন ইজহারসহ মোট আট আসামীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তারা বর্তমানে কারাগারে রয়েছে।

প্রসঙ্গত, মুফতি ইজহার হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমীরের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ইসলামী ঐক্যজোট একাংশের চেয়ারম্যান। তিনি নিজের গড়া নেজামে ইসলামী পার্টির চেয়ারম্যানও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *