পঞ্চমবার বিশ্বকাপ জিতলো অস্ট্রেলিয়া

আনন্দের, সফলতার, অর্জনের প্রতীক হয়ে আবারও ধরা দিল হলুদ রঙ। ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বোচ্চ পঞ্চমবার বিশ্বকাপ জিতলো অস্ট্রেলিয়া।

আনন্দের, সফলতার, অর্জনের প্রতীক হয়ে আবারও ধরা দিল হলুদ রঙ। ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বোচ্চ পঞ্চমবার বিশ্বকাপ জিতলো অস্ট্রেলিয়া।নিজেদের দেশে বিশ্বকাপ। টুর্নামেন্ট শুরু হতেই হলুদ জার্সিতে ফিরেছিল অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বকাপে এটি তাদের সৌভাগ্যের রঙ। আনন্দের, সফলতার, অর্জনের প্রতীক হয়ে আবারও ধরা দিল হলুদ রঙ। ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বোচ্চ পঞ্চমবার বিশ্বকাপ জিতলো অস্ট্রেলিয়া।

মেলবোর্নে একাদশ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে ৭ উইকেটে পরাজিত করে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের মর্যাদা ফিরে পেল ফাইনালের অপ্রতিরোধ্য অস্ট্রেলিয়া। পারলো না নিউজিল্যান্ড। সেমিফাইনালের চৌকাঠ পার হওয়াই যাদের জন্য সান্তনা হয়ে রইল। মেলবোর্নে স্বাগতিকদের নৈপুন্যে বিবর্ণ দেখাল ব্ল্যাক ক্যাপসদের।

প্রথমে ব্যাট করে নিউজিল্যান্ড ৪৫ ওভারে ১৮৩ রানে অলআউট হয়। দুই হাফ সেঞ্চুরিতে ৩৩.১ ওভারেই ৩ উইকেটে ১৮৬ রান তুলে ম্যাচ জিতে নেয় অস্ট্রেলিয়া। ১০১ বল হাতে রেখে জয় পায় মাইকেল ক্লার্কের দল।ম্যাচসেরা হন ফকনার।

১৮৩ রানের পুঁজি। বল হাতে অবিশ্বাস্য কিছুই করতে হবে নিউজিল্যান্ডকে। যার শুরুটা করেছিলেন ট্রেন্ট বোল্ট। দ্বিতীয় ওভারেই অ্যারোন ফিঞ্চকে (০) ফেরান তিনি। ডেভিড ওয়ার্নার-স্টিভেন স্মিথের জুটিতে কঠিন সময়টা কাটিয়ে দেয় অস্ট্রেলিয়া। তাদের ৬১ রানের জুটি ভাঙেন ম্যাট হেনরি। ওয়ার্নার ৪৫ রান করে এলিয়টের হাতে ক্যাচ দেন।

পরে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক ও স্মিথ। তারা দুজন আর দুর্ঘটনা হতে দেননি। ধীরে ধীরে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান জয়ের বন্দরে। নিজের বিদায়ী ওয়ানডে ম্যাচে ক্লার্ক তুলে নেন ৫৮তম ওয়ানডে হাফ সেঞ্চুরি। দলকে জয় থেকে ৯ রান দূরে রেখে হেনরির বলে বোল্ড হন ক্লার্ক। শেষ ওয়ানডেতে ৭২ বলে ৭৪ রানের (১০ চার, ১ ছয়) ঝকঝকে ইনিংস খেলেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক। স্মিথ পূর্ণ করেন ৭ম হাফ সেঞ্চুরি। হেনরিকে চার মেরে দলের জয় নিশ্চিত করেন স্মিথ।তিনি ৭১ বলে ৩ চারে ৫৬ রান করে অপরাজিত থাকেন। ওয়াটসন ২ রানে অপরাজিত ছিলেন। কিউইদের হেনরি নেন ২ উইকেট।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৯টায় শুরু হয়েছে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড ফাইনাল ম্যাচটি। চার বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার জন্য এটি বিশ্বকাপের সপ্তম ফাইনাল। অন্যদিকে, এই প্রথম বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলেছে নিউজিল্যান্ড।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

নিউজিল্যান্ড : ১৮৩/১০, ওভার ৪৫ (ইলিয়ট ৮৩, টেইলর ৪০; জনসন ৩/৩০, ফকনার ৩/৩৬, স্টার্ক ২/২০)

অস্ট্রেলিয়া : ১৮৬/৩, ওভার ৩৩.১ (ক্লার্ক ৭৪, স্মিথ* ৫৬, ওয়ার্নার ৪৫; হেনরি ২/৪৬, বোল্ট ১/৪০)

ফল : ৭ উইকেটের জয়ে অস্ট্রেলিয়া বিশ্বচ্যাম্পিয়ন

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : জেমস ফকনার (অস্ট্রেলিয়া)

ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট : মিচেল স্টার্ক (অস্ট্রেলিয়া)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *