একদিনেই সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জনের মৃত্যু

আজ একদিনেই সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জনের জীবনপ্রদীপ নিভে গেল।

আজ একদিনেই সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জনের জীবনপ্রদীপ নিভে গেল। আজ একদিনেই সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জনের জীবনপ্রদীপ নিভে গেল। হবিগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের চারজনসহ পাঁচজন, ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় অটোরিকশা ও পিকআপভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের চারজনসহ সাতজন এবং গাইবান্ধায় স্বামী-স্ত্রী নিহত হয়েছেন। সোমবার সকালে পৃথক পৃথক এ দুর্ঘটনা ঘটে।

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, জেলার নবীগঞ্জে পাথরভর্তি ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে সেনা সদস্যসহ একই পরিবারের চারজন এবং প্রাইভেটকারচালক নিহত হয়েছেন।

উপজেলার সদরঘাট এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে সোমবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার খোলাহাটি ক্যান্টনমেন্টে কর্মরত সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামের সেনা সদস্য আব্দুল কাদের (৩০), তার বাবা আব্দুল হামিদ (৭০), মা কুলসুমা (৫৫), ছোট বোন শারমিন আক্তার (২২) এবং সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার ঘিলাতলি এলাকার প্রাইভেটকার চালক শাহ আলম (৩০)।

আহতরা হলেন- সেনা সদস্য কাদেরের স্ত্রী লাভলী আক্তার (২৫) এবং তার মেয়ে লামিয়া আক্তার (৩)। তাদের সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল বাতেন জানান, আব্দুল কাদের মালিতে জাতিসংঘ শান্তি মিশন থেকে গত মাসে দেশে ফেরেন। নরসিংদীতে এক আত্মীয়র বাসা থেকে রাতে গোয়াইনঘাটে ফিরছিলেন তারা। সদরঘাট এলাকায় পৌঁছার পর সিলেট থেকে ঢাকাগামী একটি পাথরভর্তি ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন নিহত হন।

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি জানান, জেলার মুক্তাগাছার ল্যাংরার বাজার মিমুরিয়া নামক স্থানে সিএনজি অটোরিকশা ও পিকআপভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষে একই পরিবারের চারজনসহ মোট সাতজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো তিনজন।

আহতদের মধ্যে দু’জন বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন— মুক্তাগাছার পাইকরা গ্রামের নবিরন বেগম (৬৫), তার ছেলে সালাম (৩২) ও মন্টু (৩৫) এবং মন্টুর চাচা জয়নাল আবেদীন (৬২), কালিবাড়ি পাইকরা গ্রামের মো. কাসেম (৬০), তুফান মিয়া (৭০) ও ইকবাল (৪৫)।

নিহতরা সকলেই সিএনজি অটোরিকশার যাত্রী। তারা আদালতে হাজিরার জন্য কালিবাড়ি থেকে ময়মনসিংহে যাচ্ছিলেন।

মুক্তাগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল উদ্দিন জানান, ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল সড়কের মুক্তাগাছা উপজেলার কালিবাড়ি বাজার থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী সিএনজি অটোরিকশাটি সোমবার বেলা ১১টার দিকে ল্যাংরার বাজার মিমুরিয়া নামক স্থানে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা মাছভর্তি একটি পিকআপভ্যানের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

ঘটনাস্থলেই পাইকরা গ্রামের নবিরন বেগম, তার ছেলে সালাম, মন্টু ও মন্টুর চাচা জয়নাল মারা যান। মুক্তাগাছা হাসপাতালে মারা যান কালিবাড়ির মো. কাশেম ও তুফান মিয়া নামে আরো দু’জন।

গুরুতর আহত ইকবাল, লুৎফর ও মনোয়ারাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দুপুর ২টার দিকে ইকবাল মারা যান।

এদিকে গাইবান্ধা প্রতিনিধি জানান, জেলার সুন্দরগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেলে থাকা মতিয়ার রহমান (৫২) ও তার স্ত্রী আসমা বেগম (৩৫) নিহত হয়েছেন।

বামনডাঙ্গা-নলডাঙ্গা সড়কের কিশামত সর্বানন্দের কাশেমবাজার এলাকায় সকাল পৌনে ১০টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মতিয়ার রহমানের বাড়ি জেলার মিঠাপুকুপর উপজেলার ইমাতপুর পুরারপাড় গ্রামে।

স্থানীয়রা জানান, মতিয়ার রহমান তার স্ত্রীকে নিয়ে মোটরসাইকেলে করে গাইবান্ধায় যাচ্ছিলেন। পথে বামনডাঙ্গা-নলডাঙ্গা সড়কের কিশামত সর্বানন্দের কাশেমবাজার এলাকায় পৌঁছলে গাইবান্ধা থেকে ছেড়ে আসা একটি ট্রাক মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তারা নিহত হন।

সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হক জানান, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধারের জন্য ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ট্রাকটি মিঠাপুকুর উপজেলার বৈরাতিরহাট পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যদের সহায়তায় জব্দ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *