‘আ.লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা বিপুল ভোটে জয়ী হবেন’

তিন সিটি নির্বাচনেই আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা বিপুল ভোটে জয়ী হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ক্ষমতাসীন দলটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।

তিন সিটি নির্বাচনেই আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা বিপুল ভোটে জয়ী হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ক্ষমতাসীন দলটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচনেই আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা বিপুল ভোটে জয়ী হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ক্ষমতাসীন দলটির সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকারমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।

বুধবার গণভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকের সূচনা বক্তব্যে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ ধরনের বৈঠকে বরাবর প্রধানমন্ত্রী সূচনা বক্তব্য রাখলেও এবার তা হয়নি।

সৈয়দ আশরাফ বলেন, ‘এ নির্বাচন জনগণের সামনে বিএনপির ধ্বংসযজ্ঞ ও নৈরাজ্যকে না বলার সুযোগ এনে দিয়েছে। জামায়াতকে না বলার সুযোগ দিয়েছে। ভোটের মাধ্যমে জনগণ বিএনপি-জামায়াতের জ্বালাও-পোড়াও, মানুষ হত্যা, নির্যাতনসহ যত রকম অপকর্ম আছে, তার প্রতিশোধ নেবে।’

ভবিষ্যতে সিটি করপোরেশনসহ সব পর্যায়ের স্থানীয় সরকার নির্বাচন দলীয়ভাবে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বিশ্বের সব দেশেই স্থানীয় সরকার নির্বাচন দলীয়ভাবে হয়। একমাত্র আমাদের দেশেই এমন বিধান নেই। আগামীতে এ নির্বাচনও যাতে দলীয়ভাবে হয়, সে জন্য সংসদে বিল আনা হবে।’

স্থানীয় সরকার নির্বাচনের প্রচার কার্যক্রমে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের অংশগ্রহণের সুযোগ না থাকাকে ‘অগণতান্ত্রিক’ আখ্যা দেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘এসব নির্বাচনে রাজনৈতিক দল প্রার্থী দিতে পারবে না, পরিচালনাও করতে পারবে না- এমন অগণতান্ত্রিক বিধান বাংলাদেশ ছাড়া অন্য কোনো গণতান্ত্রিক দেশে আছে কিনা জানা নেই।’

সৈয়দ আশরাফ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার অনুযায়ী এ নির্বাচনও সব ধরনের প্রভাবমুক্তভাবে অনুষ্ঠিত হবে। এখন পর্যন্ত কেউ এ নির্বাচনে কোনোরকম প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করেছে বলে শোনা যায়নি। আশা করি, শেষ পর্যন্ত নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। আর জনগণ যে রায় দেবে, সেটাই মেনে নেওয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত মাঠের যে খবর পাওয়া যাচ্ছে তাতে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ এবং চট্টগ্রাম- তিন সিটিতেই আমাদের প্রার্থীরা, বিশেষ করে মেয়র প্রার্থীরা বিপুল ভোটে জয়ী হবেন।’

‘ওয়ার্ডগুলোর নির্বাচনের পুরো চিত্র এখনও আমাদের কাছে পৌঁছায়নি। দু-একদিনের মধ্যে সেটিও পরিষ্কার হবে। তবে বেশির ভাগ ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদেও আমাদের দলসমর্থিত প্রার্থীরা জিতবেন বলে আমরা আশা করছি’ যোগ করেন আওয়ামী লীগ মুখপাত্র।

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, বেগম মতিয়া চৌধুরী, মোহাম্মদ নাসিম, কাজী জাফর উল্লাহ, সতিশ চন্দ্র রায়, আবুল হাসনাত আবদুল্লাহ, মাহবুব-উল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *