আগে রিভিউ, পরে প্রাণভিক্ষা

মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের রায়ের বিরুদ্ধে প্রথমে রিভিউ করা হবে বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের রায়ের বিরুদ্ধে প্রথমে রিভিউ করা হবে বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা।মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের রায়ের বিরুদ্ধে প্রথমে রিভিউ করা হবে বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

রোববার বেলা ১টায় সুপ্রিম কোর্ট বার মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মলনে কামারুজ্জামানের আইনজীবী অ্যাডভোকেট শিশির মোহাম্মদ মনির সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

শিশির মনির সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা গত ৬ নভেম্বর কামারুজ্জামানের সঙ্গে কারাগারে সাক্ষাৎ করেছি। তিনি বলেছেন, এ রায়ের বিরুদ্ধে আমি আগে রিভিও করব। রিভিউ নিষ্পত্তি হওয়ার পরে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইব কি না সে সিদ্ধান্ত জানাব।’

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক কামারুজ্জামানের রায় কার্যকর করতে জেল কোডের ৯৯১ বিধি উল্লেখ করে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা বিভ্রান্তিকর বলে মন্তব্য করে শিশির মনির বলেন, ‘মন্ত্রী বলেছেন যে জেলকোডের ৯৯১ বিধান অনুযায়ী ফাঁসির আসামির কাছে খবর পৌঁছালে ৭ দিনের মধ্যে আসামি সিদ্ধান্ত নেবে যে সে প্রাণভিক্ষা চাইবে কি চাইবে না, এই বক্তব্য ভুল। বরং জেলকেডোর ৯৯১ বিধি অনুযায়ী রায়ের খবর কানে পৌঁছামাত্র নয়, রায়ের কপি হাতে পৌঁছানোর পর আগের নিয়মে সাতদিন এবং বর্তমান নিয়মে ১৫ দিনের মধ্যে আসামি প্রাণভিক্ষার আবেদন করতে পারবেন।’

আইনমন্ত্রীর সমালোচনা করে তিনি আরো বলেন, ‘উনি একজন আইনের মানুষ এবং দায়িত্বশীল মন্ত্রী। ওনার কাছ থেকে এরকম বক্তব্য দেশের কোনো নাগরিক আশা করে না , আমরাও আশা করি না।’

কামারুজ্জামানের রায় কার্যকরিতার বিষয় নিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও আনিসুল হক গত ৩ তারিখ থেকে যেসব বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন তা পরস্পরে মধ্যে সমন্বয়হীনতার পরিচয় বহন করে বলেও উল্লেখ করেন শিশির মনির।

সংবাদ সম্মেলনে এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সহ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সাইফুর রহমান, অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দসহ অন্যান্য আইনজীবীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *