৭০তম জন্মদিন পালন করলেন খালেদা জিয়া

কেন্দ্রীয় বিএনপি, ঢাকা মহানগর বিএনপি, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদলের পক্ষ থেকে আনা পাঁচটি কেক কাটেন তিনি। যুবদলের কেকটি ৭০ কেজির, বাকিগুলো ৭০ পাউন্ডের।

কেন্দ্রীয় বিএনপি, ঢাকা মহানগর বিএনপি, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদলের পক্ষ থেকে আনা পাঁচটি কেক কাটেন তিনি। যুবদলের কেকটি ৭০ কেজির, বাকিগুলো ৭০ পাউন্ডের।আনুষ্ঠানিকভাবে কেক কেটে নিজের জন্মদিন উদযাপন করলেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। শনিবার রাত ৯টা ১৫ মিনিটি বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি, যুবদল, ঢাকা মহানগর বিএনপি ও ছাত্রদল আয়োজিত অনুষ্ঠানে নিজের ৭০তম জন্মদিনের কেক কাটেন তিনি।

খালেদা জিয়া কেন্দ্রীয় বিএনপি, ঢাকা মহানগর বিএনপি, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদলের পক্ষ থেকে আনা পাঁচটি কেক কাটেন। যুবদলের কেকটি ৭০ কেজির, বাকিগুলো ৭০ পাউন্ডের।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই খালেদা জিয়ার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন ওলামা দলের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা নেসারুল হক।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশানে কার্যালয়ের সামনে সাজসাজ রব বিরাজ করছে। কার্যালয়ের প্রবেশ ফটকে ফুল, মরিচ বাতি ও বিভিন্ন রঙের কাপড় দিয়ে সাজানো হয়েছে। সন্ধ্যা থেকে বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের শত শত নেতাকর্মী কার্যালয়ের সামনে ভিড় জমান। ‘শুভ শুভ শুভ দিন, খালেদা জিয়ার জন্মদিন’ বলে ছাত্রদলের বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মী ‘শুভ শুভ শুভ দিন,খালেদা জিয়ার জন্মদিন’ বলে স্লোগান দিয়ে মুখরিত করে রাখে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, নজরুল ইসলাম খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সেলিমা রহমান, উপদেষ্টা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, আবদুল কাইয়ূম, শামছুজ্জামান দুদু, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, মেজর জেনারেল (অব.) রহুল আলম চৌধুরী, সাবিহ উদ্দিন আহমেদ, যুগ্ম-মহাসচিব মোহাম্মদ শাহজাহান, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সানা উল্লাহ মিয়া, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার প্রমুখ।

যুবদলের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সভাপতি এ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল, মহিলা দল সভাপতি নূরে আরা সাফা, সহ-সভাপতি আফরোজা আব্বাস, সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা।
ওলামা দলের সভাপতি হাফেজ মাওলানা আবদুল মালেক, শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসোইন, সাধারণ সম্পাদক নরুল ইসলাম নাসিম, ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মামুনুর রশিদ, সহ-সভাপতি এজমল হোসেন পাইলট, সাধারণ সম্পাদক মো. আক্রামুল হাসান, তাঁতী দলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, জাসাস সাধারণ সম্পাদক মনির খান, মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম দলের সভাপতি শ্যামা ওবায়েদ প্রমুখ।

এ ছাড়া বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মাফরু কামাল খান সোহেল, বিশেষ সহকারী শামছুর রহমান শিমুল বিশ্বাস,আবদুস সাত্তার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে বিকেলে খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালন করেছে মহিলা দল। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমানের বাসায় কেক কেটে জন্মদিন উদযাপন করেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

শুক্রবার রাত ১২টার পর ১৫ আগস্টের প্রথম প্রহরে একান্ত পারিবারিকভাবে গুলশানের বাসভবন ‘ফিরোজা’য় বেগম জিয়ার দুই ভাইয়ের স্ত্রীসহ পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ৭০তম জন্মদিনের কেক কাটেন বেগম জিয়া।

এ ছাড়া লন্ডনে চিকিৎসাধীন বড় ছেলে তারেক রহমানের মেয়ে জাইমা রহমান দাদীকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান বলেও জানা গেছে।

বেগম জিয়া ১৯৯১ সালের ২০ মার্চ প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর ১৯৯৩ সাল থেকে ১৫ আগস্ট বড় পরিসরে জন্মদিন পালন করা শুরু করেন। অন্যান্য বার ১৪ আগস্ট দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে নেতা-কর্মীদের নিয়ে জন্মদিনের কেক কাটতেন খালেদা জিয়া। এবার ১৫ আগস্টের প্রথম ক্ষণে তিনি কেক কাটেননি। সাধারণত প্রতিবার ১৫ আগস্ট সকালে নয়াপল্টনে কেক কেটে আলাদা আলাদাভাবে খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালন করে বিএনপির বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন। তবে এবার তা-ও হয়নি। নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দুপুর পর্যন্ত এ ধরনের কোনো আয়োজন দেখা যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *