৫ বছর মেয়াদী সঞ্চয়পত্রে সুদের হার কমল ১.৯৩ শতাংশ

৫ বছর মেয়াদী সঞ্চয়পত্রে সুদের হার কমানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

৫ বছর মেয়াদী সঞ্চয়পত্রে সুদের হার কমানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।৫ বছর মেয়াদী সঞ্চয়পত্রে সুদের হার কমানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেন, সুদের হার এখন ১১ পয়েন্ট ২৬ করা হয়েছে। ফলে সুদের হার কমল ১.৯৩ শতাংশ।

অর্থমন্ত্রী বলেন, সঞ্চয়পত্র থেকে যেটা আপনারা পান সেটা আমি গত বছর বাড়িয়ে দিয়েছিলাম। বেশ বাড়িয়ে দিয়েছিলাম। কারণ তখন সঞ্চয়পত্র বিক্রি হচ্ছিল না। গত বছর ৫ বছর মেয়াদী সঞ্চয়পত্রের জন্য সুদের হার করেছিলাম ১৩ পয়েন্ট ১৯। এটাকে কমানো হয়েছে। ১১ পয়েন্ট ২৬ করা হয়েছে এবং এটা এ্যাফেক্টিভ হয়েছে। এটা আমরা করেছি এ কারণে যে উই সুড নট বি দ্য পার্টি যে সবচেয়ে বেশি সুদ দেয়। আমাদের চেয়ে বেশি সুদ ব্যাংকরা দেয়। আমরা সে অবস্থায় থাকতে চাই। তাহলে আমরা জোর করতে পারি তোমরা এটা কমাও।

মন্ত্রী বলেন, সুদ কমানোর ক্ষমতা আমার নেই। সুদ নির্ধারণ আমি করি না। সুদ নির্ধারণ করে যারা ব্যাংকের কর্মকর্তা আছেন, যারা ব্যবসায়ী আছেন তারা। মজার বিষয় হল যে, ভদ্রলোক ব্যবসায়ী হিসেবে উচ্চ সুদের জন্য অভিযোগ করছেন, তিনি ব্যাংকের বোর্ডে যখন বসেন তখন সুদের হারটা অত্যন্ত বাড়িয়ে দেন।

বাজেট বাস্তবায়নে শেষ সময় তাড়াহুড়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শেষ সময়ে তাড়াহুড়া হয়, এটা হবেই। আমি বিভিন্ন মহলে ৬০ বছর কাজ করছি। প্রত্যেকখানে বাজেট বানানোর সময় তাড়াহুড়া হয়। এটা অবধারিত, এটা হবেই। কারণ এটাই মানুষের চরিত্র। এতে কিছু অপচয় হয়। কিন্তু আমার বিবেচনায় সার্বিক বাজেট ইমপ্লিমেন্টে অসুবিধা হয় না, ভালোই হয়।

উপজেলায় আয়কর আদায় প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা গত ৬ বছরে আমাদের যে বোর্ড অব ডিরেক্টর আছে তা বড় ধরনের সংস্কার করেছি। সব উপজেলায় এখনো আমরা অফিস করতে পারিনি। তবে উপজেলায় আমরা অফিস করা বাড়িয়েছি এবং আরও বাড়বে। উপজেলায় অফিস করলে পরে, উপজেলায় যারা কর দেওয়ার মতো আছে তাদের ধরা যায়। শুধু মাত্র আয়করে না, অন্যান্য করের ব্যাপারে প্রযোজ্য আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *