বৃহস্পতি, রবি ও সোমবার হরতাল

নিজামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশের রায়ের প্রতিবাদে আগামী বৃহস্পতি, রবি ও সোমবার দেশব্যাপী হরতাল ডেকেছে জামায়াত।

নিজামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশের রায়ের প্রতিবাদে আগামী বৃহস্পতি, রবি ও সোমবার দেশব্যাপী হরতাল ডেকেছে জামায়াত।একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় জামায়াতে ইসলামীর আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশের রায়ের প্রতিবাদে  আগামী বৃহস্পতি, রবি ও সোমবার দেশব্যাপী হরতাল ডেকেছে জামায়াত।

জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমাদ ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান বুধবার দুপুরে এক বিবৃতিতে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

বুধবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ জামায়াত নেতা মতিউর রহমান নিজামীকে ৪টি অভিযোগে ফাঁসি ও ৪টি অভিযোগে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ দলের আমির নিজামীকে ফাঁসির আদেশ দেওয়ায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা (২৪ ঘণ্টা) ও রবিবার সকাল ৬টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত এই হরতাল আহ্বান করেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর বিরুদ্ধে সব অভিযোগ মিথ্যা, ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও কাল্পনিক। এর প্রমাণ তার জন্মস্থান পাবনার একজন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারসহ তিনজন বিশিষ্টি বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দিয়েছেন।

তারা স্পষ্টভাবে বলেছেন, মাওলানা নিজামীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের সঙ্গে তার দূরতম কোনো সম্পর্ক নেই। তারপরও নিজামীকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ায় দেশবাসী বিস্মিত, হতবাক ও গভীরভাবে মর্মাহত। এ রায়ে মাওলানা নিজামী ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছেন বলেও দাবি করেন জামায়াতের শীর্ষ এই দুই নেতা।

তারা বলেন, ‘দেশবাসী এ রায় প্রত্যাখ্যান করেছে। এ রায়ের বিরুদ্ধে মাওলানা নিজামী উচ্চ আদালতে আপিল করবেন। উচ্চ আদালত ন্যায়বিচার নিশ্চিত করলে মাওলানা নিজামী অবশ্যই বেকসুর খালাস পাবেন বলে আমরা গভীরভাবে বিশ্বাস করি।’

জামায়াতের অভিযোগ, সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থে মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের নামে জামায়াতের নেতৃবৃন্দকে হত্যার পরিকল্পনা গ্রহণ করে। শুরু থেকেই সরকার এই বিচার কার্যক্রমকে বিভিন্নভাবে প্রভাবিত করার অপচেষ্টা করে আসছে। বিচার কার্যক্রমে তাদের সরাসরি নিয়ন্ত্রণ রয়েছে।

জামায়াত নেতৃবৃন্দ সরকার অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে দেশকে এক ভয়াবহ সংঘাতের দিকে ঠেলে দিতে চাইছে বলেও অভিযোগ করেন।

এ ছাড়া শুক্রবার জামায়াতের আমির নিজামীর মুক্তি ও সাবেক আমির গোলাম আযমের রূহের মাগফিরাত কামনায় দেশব্যাপী দোয়া অনুষ্ঠান ও শনিবার নিজামীসহ আটক সকল নেতার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচিও ঘোষণা করা হয়।

অ্যাম্বুলেন্স, লাশবাহী গাড়ী, হাসপাতাল, ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি হরতালের আওতামুক্ত থাকবে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *