২৬ এপ্রিল থেকে চার দিন সেনা মোতায়েন

২৬ থেকে ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত চার দিন ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরে রিজার্ভ ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবে সেনাবাহিনী।

২৬ থেকে ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত চার দিন ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরে রিজার্ভ ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবে সেনাবাহিনী।তিন সিটি নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ২৬ থেকে ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত চার দিন ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরে রিজার্ভ ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবে সেনাবাহিনী।

মঙ্গলবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক শেষে বিকালে এ কথা জানান নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ।

শাহনেওয়াজ বলেন, “রিটার্নিং কর্মকর্তা যখনই চাইবেন, তখনই তারা (সেনাবাহিনী) তাদের ডাকে সাড়া দিয়ে চলে আসবেন এবং যা করা প্রয়োজন তাই করবেন।”

ভোটকেন্দ্রের ভেতরে সেনা সদস্যদের প্রবেশের অনুমতি থাকবে কি না, তা জানতে চাইলে কমিশনার বলেন, “কোনো সময়ই সেনাবাহিনীকে ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হয় না। এবারও দেওয়া হবে না। তারা শুধু স্ট্রাইকিং ফোর্স ও রিজার্ভ ফোর্স হিসেবে থাকবে।’

কী পরিমাণ সেনা মোতায়েন করা হবে -এমন প্রশ্নের জবাবে মো. শাহনেওয়াজ বলেন, নির্বাচন কমিশনের যত সংখ্যা প্রয়োজন তত সংখ্যাই ব্যবহার করা হবে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে আর কোনো বৈঠক করবেন কি না, জানতে চাইলে কমিশনার বলেন, “ইতিমধ্যেই দুবার বৈঠক করা হয়েছে। আর কোনো বৈঠকের প্রয়োজন আছে বলে আমরা মনে করছি না।”

মঙ্গলবার বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সশস্ত্র বাহিনীর প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার, র‌্যাব, বিজিবি, কোস্টগার্ড, এনএসআই, ডিজিএফআইয়ের মহাপরিচালকরা, পুলিশের মহাপরিদর্শক, নির্বাচন কমিশনার মো. আব্দুল মোবারক, আবু হাফিজ, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) জাবেদ আলী ও মো. শাহ নেওয়াজ, নির্বাচন কমিশন সচিব মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, যুগ্ম সচিব জেসমিন তুলি, ঢাকা উত্তরের রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহ আলম, দক্ষিণের রিটার্নিং কর্মকর্তা মিহির সারোয়ার মোর্শেদ, চট্টগ্রামের রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবদুল বাতেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *