২৫ মিলিয়ন ডলারে লাদেনের তথ্য কিনেছিল আমেরিকা

২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিময়ে জীবিত লাদেনকে কিনেছিল আমেরিকা। বদলে সিআইএ পেয়েছিল লাদেন কোথায় আছেন সেই সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য।

২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিময়ে জীবিত লাদেনকে কিনেছিল আমেরিকা। বদলে সিআইএ পেয়েছিল লাদেন কোথায় আছেন সেই সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য। আর সেই সব তথ্যই সিআইয়ের হাতে তুলে দিয়েছিল আইএসআই।

লাদেন সংক্রান্ত একাধিক চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন প্রবীণ ইনভেসটিগেটিভ সাংবাদিক সেইমুর হর্ষ। লন্ডন বুক রিভিউতে নতুন এক অ্যাকাউন্টে তিনি ২০১১ সালের লাদেন নিকেশ সংক্রান্ত যাবতীয় অজানা তথ্য তুলে ধরেছেন। এমনকি লাদেন হত্যার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সংক্রান্ত পেশ করা যাবতীয় তথ্যকে মিথ্যা বলেও ব্যাখ্যা করেছেন।

তার কথায়, ২০০৬ সাল থেকে পাকিস্তানের অ্যাবাটাবাদে পাক প্রশাসন ও আইএসআইয়ের হাতে বন্দি ছিলেন লাদেন। শেষমেশ ২০০৬ সালে পাক আর্মি চিফ আশফাক পারভেজ কায়ানি ও জেনারেল শুজা পাশা সব তথ্য দিয়ে লাদেনকে খুন করতে সাহায্য করেছিলেন। তারা জানতেন মার্কিন হানা সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য। এমনকি তাদের হস্তক্ষেপেই অ্যাবাটাবাদে বিনা সমস্যায় পৌঁছেছিল মার্কিন হেলিকপ্টার।

২ মে ২০১১ সালে মার্কিন সেনার গোপন অভিযানে খতম হন বিশ্বের তাস ওসামা বিন লাদেন। তার পর পাক প্রশাসনের তরফে সুর চড়ানো হয় লাদেনকে খুন করা হয়েছে পাকিস্তানকে সম্পূর্ণ অন্ধকারে রেখেই। তবে সে কথা যে মিথ্যা আজ ফের একবার তা প্রমাণ হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *