১৫ থেকে ১৭ বছর হলেই জাতীয় পরিচয়পত্র

আগামী ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে ১৫ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের নিবন্ধন করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

আগামী ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে ১৫ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের নিবন্ধন করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।আগামী ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে ১৫ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের নিবন্ধন করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। জাতীয় পরিচয়পত্রও (এনআইডি) দেয়া হবে তাদের। তবে বয়স ১৮ না হওয়া পর্যান্ত তারা ভোট দিতে পারবে না।

মঙ্গলবার কমিশনে ২০১৫-১৬ সালের ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমের কার্যপত্র উত্থাপন করলে কমিশন তা পর্যালোচনা করে এসব নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়।

কমিশন সূত্র জানায়, জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহ উদ্দিন ওই কার্যিপত্র উত্তাপন করেন।

কার্যপত্র থেকে জানা যায়, ২০১৫-১৬ সালের ভোটার তালিকা হালানাগাদে ২০০০ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে জন্ম নেয়া নাগরিকদের নিবন্ধনের আওতায় আনা হবে এবং তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়া হবে। তবে তারা ভোট দিতে পারবে না। তাদের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হলে তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হবেন।

কার্যপত্র পত্রে বলা হয়েছে, তিনটি ধাপে ২০১৫-১৬ সালের ভোটার তালিকা হালানাগাদ কার্যক্রম করা হবে। প্রথম ধাপে আগামী ১ আগস্ট ১৪ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য সংগ্রহ ও যাচাই। ২০ আগস্ট থেকে ১৯ অক্টোবর পর্যন্ত নিবন্ধন।

দ্বিতীয় ধাপে ১ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত তথ্য সংগ্রহ। ২৫ অক্টোবর থেকে ২৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত নিবন্ধন। তৃতীয় ধাপে ১ ডিসেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত তথ্য সংগ্রহ এবং ২৮ ডিসেম্বর থেকে ২০১৬ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নিবন্ধন। ২০১৬ সালের ২ মের মধ্যে নিবন্ধন প্রক্রিয়া শেষ করার পরিকল্পনা রয়েছে ইসির। প্রায় ৭২ লাখ নাগরিককে এ নিবন্ধনের আওতায় আনতে চায় ইসি।

এ বিষয়ে ইসির যুগ্ম সচিব জেসমিন টুলী সাংবাদিকদের বলেন, “১৫ থেকে ১৭ বছর বয়সী অথবা ১৮ বছরের কম বয়সীদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার বিষয়ে কমিশন বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।”

জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন আইন (সংশোধন) ২০১৩ অনুযায়ী, কম বসয়ী নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার উদ্যোগ নেয় ইসি। ওই ধারায় বলা হয়েছে, নির্বাচন কমিশন ভোটার ছাড়াও অন্যান্য নাগরিককে জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান করতে পারবে। এ ছাড়া জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন আইন – ২০১৪ এর বিধি-৪ অনুযায়ী ভোটার হওয়ার যোগ্য নয় এমন নাগরিককে পরিচয় নিবন্ধন ও জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান করার বিধান রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *