নানা আয়োজনে পালিত হচ্ছে ১৪২২ বঙ্গাব্দ

আজ ১লা বৈশাখ ১৪২২ বঙ্গাব্দ। বর্ষবরণ সহ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হচ্ছে বাঙালির প্রাণের এই উৎসব।
আজ ১লা বৈশাখ ১৪২২ বঙ্গাব্দ। বর্ষবরণ সহ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হচ্ছে বাঙালির প্রাণের এই উৎসব।আজ ১লা বৈশাখ ১৪২২ বঙ্গাব্দ। বর্ষবরণ সহ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হচ্ছে বাঙালির প্রাণের এই উৎসব।

মনের অন্ধকারে আলো জ্বালার প্রত্যয়ে ১৪২২ সনের পয়লা বৈশাখ বাংলা নববর্ষের মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষ হয়েছে মঙ্গলবার সকাল ১০টায়। এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রার স্লোগান হলো- ‘অনেক আলো জ্বালতে হবে মনের অন্ধকারে।’

মঙ্গলবার সকাল ৯টা ৮ মিনিটে শোভাযাত্রাটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের সামনে থেকে শুরু হয়। এর পর শোভাযাত্রাটি রূপসি বাংলা, টিএসটি মোড় মোড় হয়ে ফের চারুকলার সামনে গিয়ে শেষ হয়।

আবহমান বাংলার ইতিহাস ঐতিয্য প্রতীকী উপস্থাপনের সঙ্গে এতে স্থান পেয়েছে সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহও।

শোভাযাত্রায় সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন স্তরের মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নিয়েছেন।

এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রায় ছাগল, তোতা পাখি, হাট্টিমা টিম টিম, কাকাতুয়া, মাছ, বাঘ, পায়রা, হাতিসহ ১১টি বড় কাঠামো রয়েছে।

সমৃদ্ধির প্রতীক হিসেবে রয়েছে ছাগল ও দুটি ছানা। সাম্প্রদায়িক শক্তিকে রুখে দাঁড়ানোর প্রতীক হিসেবে শোভাযাত্রায় রয়েছে প্রায় ২০ ফুট লম্বা একটি মুষ্টিবদ্ধ হাত। যার আঙুলে একটি লাল রং। এই লাল রং সাম্প্রদায়িক শক্তির প্রতীক। আর হাতটি দ্বারা বোঝানো হয়েছে দেশের শান্তিকামী মানুষ।

বিশেষ কাঠামো হিসেবে রয়েছে, হাতের থাবা দিয়ে মানুষের গলা চেপে ধরে আছে- এমন একটি প্রতীক, যা দিয়ে সাম্প্রতিক সহিংস ঘটনাবলি বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছে।

অসংখ্য মুখোশ ও হরেক রকম পুতুলের পাশাপাশি এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রায় শিশুরা ঘুড়ি ওড়াচ্ছে, কাগজ দিয়ে তৈরি পাখি, পুতুল, চড়কা ধরে আছে কিংবা অপশক্তিকে বাম হাত দিয়েই মেরে ফেলা যায়, এমন বিষয়গুলো তুলে আনার চেষ্টা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *