খুলনা রেঞ্জের পুলিশের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) এস এম মনিরুজ্জামান বলেছেন, ‘বোমা হামলাকারীদের হাত দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেন, দায়-দায়িত্ব আমাদের।
সারাদেশ

‘হাত বিচ্ছিন্ন করে ফেলেন, দায় আমাদের’

খুলনা রেঞ্জের পুলিশের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) এস এম মনিরুজ্জামান বলেছেন, ‘বোমা হামলাকারীদের হাত দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেন, দায়-দায়িত্ব আমাদের।খুলনা রেঞ্জের পুলিশের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) এস এম মনিরুজ্জামান বলেছেন, ‘বোমা হামলাকারীদের হাত দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেন, দায়-দায়িত্ব আমাদের। যারা মানুষকে পুড়িয়ে মারে তারা আমাদের বন্ধু নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘যারা রেলে নাশকতা করে হাজার হাজার মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়, যারা আমাদের সন্তানদের স্কুলে যেতে দেয় না, যারা দোকানপাট বন্ধ রাখতে চায়, তাদের জায়গা এ মাটিতে হবে না। রাষ্ট্রীয় শক্তি আর জনগণের শক্তি যদি এক হয় তবে ষড়যন্ত্রকারীরা পালানোর পথ পাবে না।’

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘বোমা হামলাকারীদের হাত দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেন, দায়-দায়িত্ব আমাদের। যারা মানুষকে পুড়িয়ে মারে তারা আমাদের বন্ধু নয়।’ তিনি সবাইকে তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

কুষ্টিয়া মডেল থানার আয়োজনে শহরতলীর ত্রিমোহনীতে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় সাধারণ মানুষের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত মতবিনিময় সভায় ডিআইজি মনিরুজ্জামান এমন মন্তব্য করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে খুলনা বিভাগীয় কমিশনার আব্দুস সামাদ দেশব্যাপী পেট্রোলবোমা হামলা বন্ধে নাশকতাকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সবাইকে রাস্তায় নেমে আসার আহ্বান জানান। দুষ্কৃতকারীদের বিনাশে প্রশাসনকে সহায়তা করতেও জনগণের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

আব্দুস সামাদ বলেন, কর্মহীন একটি দিন চলে যাওয়া মানে নিজের ও দেশের অর্থনীতির জন্য ক্ষতিকর। যারা দেশে সন্ত্রাস ও পেট্রোলবোমা মারছে, ওইসব ঘৃণ্য নাশকতাকারীদের হাত থেকে মানুষকে বাঁচাতে আমরা সবাই একসঙ্গে কাজ করে যাচ্ছি। ২৪ ঘণ্টা সতর্ক থেকে আমরা সর্বশক্তি নিয়োগ করেছি। দয়া করে আপনারা ওইসব সন্ত্রাসী ও নাশকতাকারীদের ধরেন অথবা ধরিয়ে দিন বা আমাদের তথ্য দিন।

সাংবাদিকদের সঠিক সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে দেশের কল্যাণে কাজ করারও আহ্বান জানান তিনি।

কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে এতে আরও বক্তব্য রাখেন বিজিবি খুলনা রিজিওনের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শহীদুর রহমান শহীদ, কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার (এসপি) প্রলয় চিসিম।

খুলনা বিভাগের দু’জন অতিরিক্ত ডিআইজি, কুষ্টিয়া বিজিবির সেক্টর কমান্ডার জাভেদ সুলতান, ৩২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক আবুল কালাম আজাদ, র‌্যাব-১২ এর কমান্ডার লে. কমান্ডার আলী হায়দারসহ আশপাশের কয়েক জেলার পুলিশ সুপার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা এবং স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার সাধারণ মানুষ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়ার ছয় উপজেলায় এ রকম আটটি মতবিনিময় সভায় অংশ নেন বিভাগীয় কমিশনার ও খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *