আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেরা একাদশে তামিম
খেলা

আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেরা একাদশে তামিম

আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেরা একাদশে তামিমআইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেরা একাদশে বাংলাদেশের একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে জায়গা করে নিয়েছেন তামিম।

সোমবার এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই তালিকা প্রকাশ করেছে বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটি। তামিমকে নিয়ে তৈরি একাদশের নেতৃত্বে রাখা হয়েছে শিরোপাজয়ী দল পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদকে।

এই একাদশ বেছে নেওয়ার দায়িত্বে ছিলেন মাইকেল আথারটন, সৌরভ গাঙ্গুলি, রমিজ রাজা, লরেন্স বুথ (উইজডেন অ্যালম্যানাকের সম্পাদক), জুলিয়ান গায়ার (এএফপির ক্রিকেট সংবাদদাতা) এবং জিওফ অ্যালারডাইস (আইসিসির মহাব্যবস্থাপক)।

পরিসংখ্যানের সঙ্গে ম্যাচের পরিস্থিতি বদলে দেওয়ার ক্ষমতাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। আর এ কারণেই টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান নেওয়ার পরও জায়গা হয়নি রোহিত শর্মার।

ইনিংস উদ্বোধনের দায়িত্ব পেয়েছেন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক শিখর ধাওয়ান ও ফাইনালের সেরা ফখর জামান। তামিমকে তিনে জায়গা করে দিতে কোহলিকে নামতে হচ্ছে চারে। এরপরই আছেন জো রুট। দলের একমাত্র অলরাউন্ডার বেন স্টোকস। সরফরাজ আহমেদ আছেন উইকেটরক্ষক ও অধিনায়ক দুই ভূমিকাতেই।

বোলিংয়ে তিন পেসার ও এক স্পিনারে ভরসা রেখেছেন জুরিরা। আদিল রশিদের আগে বল হাতে নেওয়ার দায়িত্ব পড়েছে ভুবনেশ্বর কুমার, জুনায়েদ খান ও হাসান আলীর ভাগে। অর্থাৎ চার সেমিফাইনালিস্ট দল থেকেই টুর্নামেন্টের সেরা একাদশ বেছে নিয়েছেন নির্বাচকেরা। শুধু দ্বাদশ ব্যক্তি হিসেবে সুযোগ পেয়েছেন নিউজিল্যান্ডের কেন উইলিয়ামসন।

আইসিসির চ্যাম্পিয়নস ট্রফি একাদশ
শিখর ধাওয়ান (৩৩৮ রান), ফখর জামান (২৫২ রান), তামিম ইকবাল (২৯৩ রান), বিরাট কোহলি (২৫৮ রান), জো রুট (২৫৮ রান), বেন স্টোকস (১৮৪ রান ও ৩ উইকেট), সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক; ৭৬ রান ও ৯ ডিসমিসাল), আদিল রশিদ (৭ উইকেট), জুনায়েদ খান (৮ উইকেট), ভুবনেশ্বর কুমার (৭ উইকেট), হাসান আলী (১৩ উইকেট)। দ্বাদশ ব্যক্তি : কেন উইলিয়ামসন (২৪৪ রান)।

টুর্নামেন্টে ব্যাট হাতে সর্বোচ্চ রানের মালিক ভারতীয় ওপেনার শিখর ধাওয়ান। এই তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে তামিম ইকবাল। বল হাতে ইংলিশ কন্ডিশনে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের পাশাপাশি টুর্নামেন্টজুড়ে দারুণ সময় কাটিয়েছে পাকিস্তানের পেসার হাসান আলী ও ভারতীয় পেসার ভুবেনেশ্বর কুমার।

র‌্যাংকিংয়ে উন্নতি তামিম-মাহমুদুল্লাহর
আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির অষ্টম আসর শেষে ব্যাটসম্যানদের তালিকায় উন্নতি হয়েছে বাংলাদেশের ওপেনার তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের। সাকিব আল হাসানের সামন্য অবনতি হলেও, মুশফিকুর রহিম নিজের আগের অবস্থানেই আছেন।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে ১৯তম স্থানে ছিলেন তামিম। এবারের আসরে ৪ ইনিংসে ১টি সেঞ্চুরি ও ২টি হাফ-সেঞ্চুরিতে ২৯৩ রান করেছেন তিনি। তাই তিন ধাপ উন্নতি হয়েছে তামিমের। ফলে র‌্যাংকিং ১৬তম স্থানে উঠে এসেছেন এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান।

দুই ধাপ উন্নতি হয়েছে মাহমুদুল্লাহ’র। ৪ ইনিংসে ১টি সেঞ্চুরিতে ১৩৭ রান করায় ৪৩তম স্থান থেকে ৪১তম স্থানে উঠে এসেছেন মাহমুদুল্লাহ।

২টি হাফ-সেঞ্চুরিতে ৪ ইনিংসে ১৬৩ রান করেছেন মুশফিক। কিন্তু র‌্যাংকিংয়ে কোন উন্নতি বা অবনতি কিছুই হয়নি মুশির। ২১তমস্থানে রয়েছেন তিনি। তবে ৩ রেটিং বেড়েছে মুশফিকের।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ১টি সেঞ্চুরিতে ৪ ইনিংসে ১৬৮ রান করেছেন সাকিব আল হাসান। তারপরও এক ধাপ অবনতি হয়েছে তার। তবে ১৩ রেটিং বেড়েছে সাকিবের।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ব্যাট হাতে পুরোপুরিভাবে ব্যর্থ ওপেনার সৌম্য সরকারের অবনতি হয়েছে ১৩ ধাপ। ৪ ইনিংসে মাত্র ৩৪ রান করেন তিনি। তাই ৩০তম স্থান থেকে ৪৩তম স্থানে নেমে গেছেন সৌম্য।

শীর্ষস্থান ধরে রেখেছেন সাকিব
আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির অষ্টম আসর শেষে ওয়ানডে অলরাউন্ডারদের তালিকায় শীর্ষস্থান ধরে রেখেছেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান। এমনকি পরের চারটি স্থানও ধরে রেখেছেন অন্যান্য অলরাউন্ডাররা।

তবে সপ্তম থেকে ষষ্ঠ স্থানে উঠে এসেছেন ইংল্যান্ডের বেন স্টোকস। ফলে ষষ্ঠ থেকে সপ্তম স্থানে নেমে গেছেন অস্ট্রেলিয়ার মিচেল মার্শ। অষ্টম ও নবম স্থান ধরে রেখেছেন যথাক্রমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক জেসন হোল্ডার ও ইংল্যান্ডের ক্রিস ওকস।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে শীর্ষ দশজনের মধ্য ছিলেন না ভারতের বাঁ-হাতি অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা। তবে এবার তিনি জায়গা করে নিয়েছেন দশম স্থানে।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *