most-popular-musician-and music-director-of-Bangladesh

সোনালি দিনের সেইসব সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক

আমরা যখন অডিও ক্যাসেট যুগে কোন অ্যালবাম কেনার জন্য উম্মাদ ছিলাম তখনকার সময়ে সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে ছিলেন আশিকুজ্জামান টুলু, প্রিন্স মাহমুদ, আশরাফ বাবু, আইয়ুব বাচ্চু, ফুয়াদ নাসের বাবু, মানাম আহমেদ, পার্থ, জেমস, তরুণ মুন্সি, জুয়েল বাবু, কাওসার আহমেদ বিপুলসহ আরও অনেক তরুণরা।

এছাড়া ব্যান্ডের সলো অ্যালবামগুলোতে যদিও কম্পোজিশন ব্যান্ডের নামে থাকতো কিন্তু সুরকার হিসেবে আশিকুজ্জামান টুলু (চাইম ও আর্ক), চন্দন (উইনিং), ফজল(নোভা), কমল (ওয়ারফেইজ), বাবনা (ওয়ারফেইজ), পিয়ারু খান (ফিডব্যাক), শওকত আজিজ (অবসকিউর), বিপ্লব(প্রমিথিউস), ফুয়াদ নাসের বাবু (ফিডব্যাক), আইয়ুব বাচ্চু (সোলস ও এলআরবি), পার্থ (সোলস), নাসিম আলী (সোলস), আশরাফ বাবু (অরবিট), জেমস (ফিলিংস/ নগরবাউল), মানাম আহমেদ (মাইলস), হামিন আহমেদ (মাইলস)এর মতো অসাধারন সব প্রতিভাবান তরুণরা তাদের নিজ নিজ ব্যান্ডের গানগুলোর সুর করতো। তাদের সবারই যার যার আলাদা একটা সিগনেচার থাকতো যে গানের সুর শুনলেই আমরা মুখস্থ বলে দিতে পারতাম গানটির সুরকার কে। প্রতিটি সুরকারেরই অসংখ্য কালজয়ী গান আছে যা চিরকাল সব যুগের শ্রোতাদের মনে ধরবে।

ব্যান্ডের সলো অ্যালবাম ব্যতীত অন্য অ্যালবামের বেলায় শিল্পী কে কে তা না দেখে ক্যাসেটের কভারে সুরকার বা সঙ্গীত পরিচালকের নাম দেখলেই চোখ বন্ধ করে সেই অ্যালবাম কিনতে পারতাম অনায়াসেই। কারণ আমাদের একটা অগাধ আস্থা ও বিশ্বাস ছিলো কয়েকজন সুরকারের উপর যাদের অ্যালবাম কেনা মানেই পয়সা উশুল নিশ্চিত। আশিকুজ্জামান টুলু, প্রিন্স মাহমুদ, আইয়ুব বাচ্চু, আশরাফ বাবু, জুয়েল বাবু এই নামগুলো ছিলো একেকটা ব্র্যান্ডের মতো যাদের অ্যালবাম কেনা মানে বিশেষ কিছু কেনা। বিশেষ কিছু পাওয়া যেন অমূল্য কোন রত্ন। উল্লেখিত সুরকার/ সঙ্গীত পরিচালকরা এমনই ছিলেন যে ব্যান্ড কিংবা আধুনিক বাংলা গান যে ধারাতেই হাত দিয়েছেন সেই ধারাতেই ইতিহাস হয়ে আছেন।

টুলু ভাইয়ের সুর চাইমের ‘আমার জন্য লিখো শুধু একটা গান’ কিংবা আর্কের জন্য সুর করা ‘ওরে আমার পাগল মন’ গানগুলো যেমন সুপারহিট ঠিক তেমনি আধুনিক গানের শিল্পী তপন–শাকিলার কণ্ঠে ‘তুমি আমার প্রথম সকাল’ গানটিও সুপারহিট হয়ে আছে যা যুগ যুগ ধরে শ্রোতাদের ভালো লাগবে। ঠিক একই রকম অসংখ্য উদাহরণ দেখানো যাবে আইয়ুব বাচ্চু, প্রিন্স মাহমুদসহ অন্যান্য সুরকার সঙ্গীত পরিচালকদের বেলায় যা লিখতে গেলে পুরো একটি গ্রন্থ প্রকাশ করা লাগবে ছোট্ট এই লেখায় সম্ভব না।

বহুবছর পর আজও সেইদিনের কথাগুলো মনে পড়লে বুঝি আসলেই ঐ অডিও ক্যাসেটগুলো ছিলো বাংলাদেশের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির ইতিহাসের একেকটি অমূল্য সম্পদ যা বাংলাদেশের অডিও গানের সর্বশ্রেষ্ঠ সময়ের সাক্ষ্য বহন করে।

অথচ আজ ফ্রি দিলেও বাংলা ব্যান্ড ও আধুনিক গানের নতুন অ্যালবাম মন ভরায় না। ৫০০ গান খুঁজে ১০টি হৃদয়ছোঁয়া গান খুঁজে পাওয়া যায় না। তাইতো শ্রোতাদের মন ভরাতে ডঃ মাহফুজুর রহমানের মতো শিল্পীদের গান গাওয়া লাগে।

বড় আফসোস লাগে, বড় মায়া লাগে ২০০০ সালের পরে বেড়ে উঠা এই নতুন প্রজন্মের জন্য।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *