সাকিবের অনন্য রেকর্ড, মাশরাফির ২০০ উইকেট

সিরিজ নির্ধারণী শেষ ওয়ানডেতে প্রোটিয়া অধিনায়ক হাশিম আমলাকে ফিরিয়ে অনন্য রেকর্ডের মালিক হয়েছেন সাকিব আল হাসান।

সিরিজ নির্ধারণী শেষ ওয়ানডেতে প্রোটিয়া অধিনায়ক হাশিম আমলাকে ফিরিয়ে অনন্য রেকর্ডের মালিক হয়েছেন সাকিব আল হাসান।সিরিজ নির্ধারণী শেষ ওয়ানডেতে প্রোটিয়া অধিনায়ক হাশিম আমলাকে ফিরিয়ে অনন্য রেকর্ডের মালিক হয়েছেন সাকিব আল হাসান।

অন্যদিকে, রাজ্জাক-সাকিবের পর তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটে ২০০ উইকেটের মাইলফলক অর্জন করলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। ডেভিড মিলার হয়েছেন মাশরাফির ২০০তম শিকার। ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে উড়ন্ত বাজপাখির মতো অসাধারন ক্যাচ ধরেছেন সাব্বির রহমান। ১১৩ রানে ৫ উইকেট হারায় প্রোটিয়ারা।

ক্রিকেট ইতিহাসে এক ম্যাচে দুই বোলারের ২০০ উইকেট নেয়ার ঘটনা এটাই প্রথম।

তিনি এখন বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। একই সঙ্গে বিশ্বের সপ্তম খেলোয়াড়, যিনি ৪০০০ রান ও ২০০ উইকেটের মালিক হলেন। ২০৭ উইকেট নিয়ে সাকিবের উপরে আছেন বাম-হাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক।

আরেকটি দিক দিয়েও এগিয়ে সাকিব। এই সাতজনের মধ্যে তার বোলিং গড়ই (২৮.৪২) সবচেয়ে ভালো। তবে ব্যাটিং গড়ে এগিয়ে রয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার জ্যাক ক্যালিস (৪৪.৩৬)। সাকিবের ব্যাটিং গড় ৩৫.৩৩।

আমলাকে ফেরানোর আগে অবশ্য সাকিব ফেরান ফাফ ডু প্লেসিসকে। ব্যক্তিগত ১৩ রানে সাকিবের বলে হাশিম আমলাকে মিড-অফে জীবন দেন সাব্বির রহমান। তবে রেকর্ড আর বেশিক্ষণ অপেক্ষায় রাখেনি তিন ফরমেটের সেরা সাকিবকে।

ওয়ানডে ইতিহাসে সাকিবের আগে মাত্র তিনজন বাঁহাতি স্পিনার পেয়েছেন ২০০ উইকেট। সাকিবের আগে বাংলাদেশের রাজ্জাক ছাড়াও এ তালিকায় নাম লিখিয়েছেন সনাৎ জয়াসুরিয়া ও ডেনিয়েল ভেট্টোরি।

তা-ই নয়, সাকিব ঢুকে পড়েছেন রেকর্ড বইয়ের আরো একটি অধ্যায়ে। ওয়ানডেতে সাকিবের রান ৪৩৮২। চার হাজার রান ও ২০০ উইকেটের ‘ডাবল’ এর আগে ছিল মাত্র ছয়জন ক্রিকেটারের।

সাকিব বসেছেন জয়াসুরিয়া, ক্রিস হ্যারিস, ক্রিস কেয়ার্নস, জ্যাক ক্যালিস, শহীদ আফ্রিদি ও আব্দুল রাজ্জাকদের পাশে। আগের ছয়জনের মাত্র দুজন ছিলেন স্পিনার—জয়াসুরিয়া ও আফ্রিদি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *