বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “আওয়ামী লীগ সভানেত্রী আপনি যে জায়গায় আছেন সেটি সম্পূর্ণ চোরাবালি। আপনার পায়ের নীচে মাটি নেই।
জাতীয়

‘শেখ হাসিনা চোরাবালির উপর দাঁড়িয়ে আছেন’

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “আওয়ামী লীগ সভানেত্রী আপনি যে জায়গায় আছেন সেটি সম্পূর্ণ চোরাবালি। আপনার পায়ের নীচে মাটি নেই।বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “আওয়ামী লীগ সভানেত্রী আপনি যে জায়গায় আছেন সেটি সম্পূর্ণ চোরাবালি। আপনার পায়ের নীচে মাটি নেই। রাজনীতির একটি ভয়ংকর জায়গায় দাঁড়িয়ে আছেন।সত্যকে অস্বীকার করছেন জনমতকে অস্বীকার করছেন। জনগণের মুখের ভাষা বোঝেন না। এর পরিণতি ভালো হয় না। দয়া করে নিজেদের ও দলের সমূহ বিপদ ডেকে আনবেন না। জনমতকে সামনে রেখে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন।”

সোমবার বিকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে ( দ্বিতীয় তলা) ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

পাঁচ জানুয়ারি নির্বাচন নিয়ে যারা কথা বলে তারা অর্বাচীন’ সংসদে প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনা করেছে বিএনপি। ওই বক্তব্য টেনে ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে প্রশ্ন করে ফখরুল বলেন, “প্রধানমন্ত্রী সংসদে বলেছেন পাঁচ জানুয়ারি নির্বাচন নিয়ে যারা কথা বলে তারা অর্বাচীন। আমি জানি না অর্বাচীনের অর্থ ভিন্ন ভিন্ন কি না। গোটা পৃথিবীর কাছে ওই নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হয়নি। ইউরোপীয় ইউনিয়ন, আমেরিকাও যুক্তরাজ্য এখনো বলছে, ওটা কোনো নির্বাচন হয়নি। তারা তাদের আগের অবস্থানেই আছে। ওইসব দেশ অবিলম্বে আলোচনা মাধ্যমে নির্বাচন দেয়ার কথা বলছে। তাহলে তারা কি সবাই অর্বাচীন? দেশের মানুষ, ৯০ ভাগ মানুষ কি অর্বাচীন?।”

আওয়ামী লীগ নেতা শাহ এসএম কিবরিয়া হত্যা মামলার সম্পূরক চার্জশিটে সিলেটের মেয়রকে আসামি করার নিন্দা জানান ফখরুল। তিনি বলেন, “হীন রাজনৈতিক উদ্দেশে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের মামলা দিয়ে আটকে দিয়ে সরকার একদলীয় শাসন কায়েম করতে চায়।”

৭ নভেম্বর সিপাহী বিপ্লব ও সংহতি দিবসের গুরুত্ব তুলে ধরে তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগ এই দিনকে পছন্দ করে না। কারণ এই দিনটি তাদের মরণ ঘণ্টার দিন। তারা আবারো বাংলাদেশকে তাবেদার রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিল সেই চক্রান্ত ধূলিস্যাত হয়ে গিয়েছিল।”

তিনি বলেন, “যারা এই দিনকে ও জিয়াউর রহমানকে স্বীকার করতে চায় না তারা দেশের স্বাধীনতাকে অস্বীকার করতে চায়।”

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনে নামার আহ্বান জানান ফখরুল।

অনুষ্ঠানে মহিলা দলের সভানেত্রী নূরে আরা সাফার সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, মহিলা দলের নেতাদের মধ্যে শিরিন সুলতানা, রেহানা আক্তার রানু, বিলকিস ইসলাম, সুলতানা আহম্মেদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মহিলা দলের কেন্দ্রীয় নেতা বিলকিস জাহান শিরিন।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *