২০ বছর পর লর্ডসে পাকিস্তানের জয়
জাতীয়

২০ বছর পর লর্ডসে পাকিস্তানের জয়

২০ বছর পর লর্ডসে পাকিস্তানের জয়২০ বছর পর ঐতিহ্যবাহী লর্ডসে কোনো টেস্ট জয়ের কৃতিত্ব দেখাল পাকিস্তান। সিরিজের প্রথম ম্যাচের চতুর্থ দিনে ইংল্যান্ডকে ৭৫ রানে হারিয়েছে পাকিস্তান। পাকিস্তানের বেধে দেওয়া ২৮৩ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ড থেমে গেছে ২০৭ রানে।

এর আগে ইংল্যান্ডের মাটিতে মোট ৯টি টেস্ট জিতেছিল পাকিস্তানীরা। যার মধ্যে ৩টি ছিল লর্ডসের মাঠে। এই মাঠে সর্বশেষ ১৯৯৬ সালে টেস্ট জিতেছিল তারা। এরপর গত ২০ বছরে লর্ডসে কোনো টেস্ট জয়ের স্বাদ পায়নি পাকিস্তান। সেই হিসেবে রোববার রাতে মিসবাহরা ঐতিহাসিক এক জয়ই পেলেন লর্ডসের মাঠে। ঘুঁচে গেল পাকিস্তানের লর্ডস আক্ষেপ।

প্রথম ইনিংসে দলপতি মিসবাহর ১১৪, আসাদ শফিকের ৭৩, মোহাম্মদ হাফিজের ৪০ আর ইউনিস খানের ৩৩ রানের সুবাদে পাকিস্তানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩৩৯ রান।

জবাবে, ২৭২ রানে গুটিয়ে যায় ইংলিশদের প্রথম ইনিংস। দ্বিতীয় ইনিংসে এগিয়ে থেকে ব্যাটিংয়ে নেমে পাকিস্তান ২১৫ রান করে অলআউট হয়। ফলে, ইংলিশদের জয়ের টার্গেট দাঁড়ায় ২৮৩ রান।

পাকিস্তানি বোলিং তোপে স্বাগতিকরা ২০৭ রানে গুটিয়ে গেলে ৭৫ রানের জয় তুলে নেয় সফরকারীরা। ইংল্যান্ডের হয়ে প্রথম ইনিংসে ক্রিস ওকস ৬টি আর স্টুয়ার্ট ব্রড তিনটি উইকেট দখল করেন।

ব্যাটিংয়ে নেমে ইংল্যান্ডের হয়ে প্রথম ইনিংসে দলপতি অ্যালিস্টার কুক ৮১, জো রুট ৪৮, ক্রিস ওকস অপরাজিত ৩৫ রান করেন। ৭৯.১ ওভারে গুটিয়ে যাওয়ার আগে ইংলিশরা ২৭২ রান সংগ্রহ করে। পাকিস্তানের হয়ে স্পিনার ইয়াসির শাহ একাই ৬টি উইকেট দখল করেন। একটি করে উইকেট পান মোহাম্মদ আমির, রাহাত আলি ও ওয়াহাব রিয়াজ।

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে হাফিজ ০ রানে বিদায় নিলেও আরেক ওপেনার শান মাসুদ করেন ২৪ রান। ২৩ রান আসে আজহার আলির ব্যাট থেকে। ইউনিস খান ২৫, মিসবাহ ০, শফিক ৪৯, সরফরাজ ৪৫, ইয়াসির শাহ ৩০ রান করেন।

সবক’টি উইকেট হারিয়ে ২১৫ রানে ইনিংস শেষ করে পাকিস্তান। ইংল্যান্ডের হয়ে আরো ৫টি উইকেট দখল করেন ক্রিস ওকস। এছাড়া, মঈন আলি দুটি ও ব্রড তিনটি করে উইকেট দখল করেন।

২৮৩ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু ভালো হয়নি ইংল্যান্ডের। ওপেনার অ্যালিস্টার কুক ৮, অ্যালেক্স হেলস ১৬ আর তিন নম্বরে নামা জো রুট ৯ রান করে রাহাত আলির শিকারে পরিণত হন। মাঝে জেমস ভিঞ্চ ৪২, গ্যারি ব্যালান্স ৪৩ আর বেয়ারস্টো ৪৮ রান করে দলকে জয়ের পথ দেখান। শেষ দিকে ক্রিস ওকস ২৩ রান করেন। তবে, এই ইনিংসগুলো ইংলিশদের জয়ের পথে কাজে লাগেনি। ২০৭ রানেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিকরা।

১৯৯৬ সালের পর এই ভেন্যুতে পাকিস্তানকে জেতাতে বল হাতে ইয়াসির শাহ আরো চারটি উইকেট তুলে নেন। রাহাত আলি তিনটি ও মোহাম্মদ আমির দুটি উইকেট লাভ করেন। এছাড়া, একটি উইকেট দখল করেন ওয়াহাব রিয়াজ।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন ইয়াসির শাহ।

এ জয়ে ৪ ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে রইল পাকিস্তান।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *