পবিত্র হজ ও মহানবীকে (স.) নিয়ে কটূক্তি করায় মন্ত্রিত্ব হারানো ও দল থেকে বহিষ্কার হওয়া আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
জাতীয়

লতিফকে গ্রেফতারে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

পবিত্র হজ ও মহানবীকে (স.) নিয়ে কটূক্তি করায় মন্ত্রিত্ব হারানো ও দল থেকে বহিষ্কার হওয়া আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।পবিত্র হজ ও মহানবীকে (স.) নিয়ে কটূক্তি করায় মন্ত্রিত্ব হারানো ও দল থেকে বহিষ্কার হওয়া আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার সংসদ অধিবেশন চলাকালে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালকে ডেকে প্রধানমন্ত্রী এই নির্দেশ দেন। সে সময় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক উপস্থিত ছিলেন।

রাতে যোগাযোগ করা হলে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন। তবে কখন তাকে গ্রেফতার করা হবে, সে ব্যাপারে কিছু বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন তিনি।

আবদুল লতিফ সিদ্দিকী রবিবার রাতে নাটকীয়ভাবে কলকাতা থেকে বিমানে ঢাকা ফেরার সংবাদ প্রচার হলে তাকে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি ওঠে বিভিন্ন মহল থেকে।

তাকে গ্রেফতারের দাবিতে হেফাজতসহ বেশ কয়েকটি ইসলামপন্থি দল বৃহস্পতিবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দিয়েছে।

বিএনপিসহ বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক দলও অভিযোগ করেছে, সরকারের সম্মতি নিয়েই লতিফ সিদ্দিকী দেশে ফিরেছেন।

এদিকে, সোমবার রাতে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

লতিফ সিদ্দিকী সংসদ সদস্য হওয়ায় তাকে গ্রেফতারে স্পিকারের অনুমতির প্রয়োজন নেই বলে ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর মন্তব্য ও ব্যাপারটি নিয়ে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দ্বিমত নিয়ে প্রধানমন্ত্রী কিছু জানতে চেয়েছেন কি না এ সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে স্পিকার নেতিবাচক জবাব দেন।

লতিফ সিদ্দিকী দেশে ফেরার পর থেকে কোথায় আছেন, জামিন নিতে আদালতে গিয়েছিলেন কি না তা নিয়ে গতকাল কম গুঞ্জন হয়নি।

তবে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে, লতিফ সিদ্দিকী গোয়েন্দা হেফাজতেই রয়েছেন।

এদিকে, লতিফ সিদ্দিকীকে নিয়ে আওয়ামী লীগে টেনশন বাড়ছে। বিতর্কিত এই রাজনৈতিক নেতা দেশে ফিরে আসায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও।

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা রাজনৈতিক পরিস্থিতি ঘোলাটে হওয়ার আগেই লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতার করতে তাগিদ দিচ্ছেন।

রবিবার রাতে সংসদ থেকে গণভবনে আসার পর আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর দেশে আসার খবর জানতে পারেন প্রধানমন্ত্রী।

রাতেই তিনি আওয়ামী লীগের কয়েকজন নীতিনির্ধারক নেতার সঙ্গে পরামর্শ করেছেন। তবে সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ নিয়ে কোনো আলোচনা করেননি প্রধানমন্ত্রী।

আবদুল লতিফ সিদ্দিকী সরকারের কয়েকজন নীতিনির্ধারক নেতার সঙ্গে যোগাযোগ করে তাকে গ্রেফতার না করার বিষয়ে ‘সবুজ সংকেত’ পাওয়ার চেষ্টা করলেও কেউ সাড়া দেয়নি বলে জানা গেছে।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *