মেয়র আনিসুল হক ইন্তেকাল করেছেন

মেয়র আনিসুল হক ইন্তেকাল করেছেন

28
0
SHARE

মেয়র আনিসুল হক ইন্তেকাল করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক লন্ডনের ওয়েলিংটন হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। তিনি স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলে রেখে গেছেন।

বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাত ১০টা ২৩ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মেয়রের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন জানিয়েছেন তাঁর সহকারী একান্ত সচিব মিজানুর রহমান।

গত মঙ্গলবার থেকে লন্ডনে আনিসুল হক লাইফ সাপোর্টে ছিলেন।

আনিসুল হক স্নায়ুরোগে ভুগছিলেন। চিকিৎসার জন্য গত ১৩ আগস্ট লন্ডনের ওয়েলিংটন হাসপাতালে ভর্তি করা তাঁকে। জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে ব্যক্তিগত কারণে লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন মেয়র।

আনিসুল হকের মরদেহ শনিবার সকাল ১১:৪০ মিনিটে বাংলাদেশ বিমানযোগে ঢাকায় আনা হবে। তাঁর নামাজে জানাজা ২ ডিসেম্বর, শনিবার, বাদ আসর (বিকাল ৪টায়) বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে।

আনিসুল হক একজন উদ্যোক্তা ছিলেন। তিনি ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সভাপতি ছিলেন। বাংলাদেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় একাধিক অনুষ্ঠান উপস্থাপনাও করেন।

২০১১ সালের ১ ডিসেম্বর গঠিত ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল অনুষ্ঠিত করপোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সমর্থন নিয়ে মেয়র পদে নির্বাচন করে বিজয়ী হন আনিসুল হক।

আনিসুল হক ১৯৫২ সালে চট্টগ্রামের নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর শৈশবের একটি বড় সময় কাটে ফেনীর সোনাগাজীর নানার বাড়িতে।

আশি ও নব্বইয়ের দশকে টিভি উপস্থাপক হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছিলেন আনিসুল হক। তার উপস্থাপনায় ‘আনন্দমেলা’ ও ‘অন্তরালে’ অনুষ্ঠান দুটি জনপ্রিয়তা পায়। ১৯৯১ সালের নির্বাচনের পূর্বে বিটিভিতে শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়ার মুখোমুখি একটি অনুষ্ঠান উপস্থাপনও করেছিলেন তিনি।

২০০৫-০৬ সালে বিজিএমইএর সভাপতির দায়িত্ব পালনের পর ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি হন তিনি। ২০১০ থেকে ২০১২ সাল মেয়াদে সার্ক চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন আনিসুল হক।

Comments

comments