মাড়ি ফোলা সমস্যার ১০টি ঝটপট সমাধান
সাময়িকী

মাড়ি ফোলা সমস্যার ১০টি ঝটপট সমাধান

মাড়ি ফোলা সমস্যা (Swollen Gums) দাঁতের ব্যাথার চেয়ে কম অস্বস্তিকর নয়। এজন্য চাই ঝটপট সমাধান। জেনে নিন ১০টি সমাধান।

১. লবণপানি
লবণপানি দিয়ে কুলকুচি করলে মুখের সংক্রমণ বা জীবাণু নষ্ট হয়। ফলে অনেকটা আরাম মেলে। আর সংক্রমণ দুর হয় বলে মাড়ির ফোলাভাবটাও সঙ্গে সঙ্গে অনেকটাই কমে যায়।

২. লবঙ্গ
লবঙ্গ দাঁতের সমস্যায় লবঙ্গ এককথায় সবচেয়ে উপকারি ঘরোয়া টোটকা। দাঁতের ব্যথা হোক, বা মাড়ির ফোলার সমস্যা লবঙ্গ তৎক্ষণাৎ সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য করে।

৩. বাবলা গাছ
মাড়ি ফোলার সমস্যায় ম্যাজিকের মতো সমাধান করে বাবলা গাছের ডাল। বাবলা গাছের ডাল পানিতে ভাল করে ফুটিয়ে সেই পানি ছেঁকে রেখে দিন। এই পানি দিয়ে দিনে দু’ থেকে তিনবার মুখ কুলকুচি করেন। উপকার পাবেনই।

৪. ক্যাস্টর অয়েল
ক্যাস্টর তেল যে শুধু চুলের পক্ষে ভাল, তা মোটেই নয়। এই তেল দাঁতের জন্যও যথেষ্ট উপকারি। এই তেল যদি সমস্যাজনিত জায়গায় লাগানো যায়, তাহলে অবশ্যই উপকার পাওয়া যায়।

৫. আদা
মুখের সংক্রমণে আদা সেই প্রাচীনকাল থেকে ঔষুধি হিসাবে চলে আসছে। শুধু সংক্রমণ নষ্ট করাই নয়, মুখে নতুন করে ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণও অনেকটা পরিমানে রোধ করে।

৬. লেবু
লেবুর পানি ঘুম থেকে উঠে দাঁত মাজার আগে লেবুর টক পানি দিয়ে মুখ ভাল করে কুলকুচি করলে মাড়ির সমস্যা অনেকাংশে রোধ করা যায়, এমনটাই দাবি চিকিৎসকদের।

৭. অ্যালোভেরা
ঘরোয়া টোটকায় অ্যালোভেরা একেবারে অলরাউন্ডার। ত্বক, ক্ষতর পাশাপাশি দাঁতের বা বিশেষত মাড়ির সমস্যায় চমকপ্রদ সমাধান হল এই ভেষজ।

৮. সরিষার তেল
সরিষার তেলে যন্ত্রণা উপশমকারী একাধিক দ্রব্য রয়েছে। তেলের সঙ্গে এক চিমটে নুন মিশিয়ে তা যদি মাড়িতে মালিশ করা যায় তাহলে উপকার পাওয়া যাবে তা শতভাগ নিশ্চিত।

৯. হাইড্রোজেন প্যারোক্সাইট
হাইড্রোজেন প্যারোক্সাইট যে কোনও ওষুধের দোকানে এই হাইড্রোজেন প্যারোক্সাইট সহজেই পাওয়া যাবে। এই হাইড্রোজেন প্যারোক্সাইট মুখের জীবাণুকে নষ্ট করে এবং যে কোনও সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচায় মুখকে। পানির সঙ্গে এটি মিশিয়ে একটি সলিউশন তৈরি করুন। তা দিয়ে সপ্তাহে দুবার করে নিয়মিত যদি কুলি করতে পারেন তাহলে দাঁত বা মাড়ির যে কোনও সমস্যাই এড়ানো সম্ভব।

১০. টি ট্রি অয়েল
মাড়ির সমস্যায় আর একটি উল্লেখযোগ্য উপকরণ হল টি-ট্রি অয়েল। এই তেল দিয়ে দাঁতের গোড়ায় মালিশ করলে ফোলা মাড়ির অস্বস্তির হাত থেকে অনেকটা নিস্তার পাওয়া যায়। আর এর কোনও সাইড এফেক্টসও নেই।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *