Manna-freed-on-bail

মাহমুদুর রহমান মান্না জামিনে মুক্তি পেয়েছেন

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। রোববার সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় ঢাকার কেরাণীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।

কেরাণীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির বলেন, আদালত থেকে জামিনের কাগজ আসার পর আজ সন্ধ্যায় মাহমুদুর রহমান মান্নাকে মুক্তি দেওয়া হয়।

মান্নার মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, নিউইয়র্কে অবস্থানরত বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা এবং অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তির সঙ্গে মান্নার টেলিফোনে কথাবার্তার দুটি অডিও ক্লিপ ২০১৫ সালে প্রকাশিত হয়। এরপর একই বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি তাঁকে গ্রেফতার করা হয়।

পরে সেনাবিদ্রোহে উসকানি দিয়ে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের অভিযোগে গুলশান থানায় ২০১৫ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি একটি মামলা করা হয়। এরপর রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে একই বছরের ৫ মার্চ মান্নার বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা করা হয়।

এ দুই মামলায় চলতি বছরের ২ ও ৭ মার্চ নিম্ন আদালতে মান্নার জামিন আবেদন নাকচ করা হয়। মান্না এরপর স্বাস্থ্যগত কারণ দেখিয়ে হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করেন। এ বিষয়ে ২১ মার্চ শুনানি শেষে আদালত জামিন প্রশ্নে রুল জারি করেন।

উলেখ্য, ২০১৫ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে বনানীর একটি বাসা থেকে গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে একটি দল মান্নাকে তুলে নিয়ে যায় বলে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়। ওই সময় গোয়েন্দা পুলিশের পক্ষ থেকে মান্নাকে আটক করার কথা অস্বীকার করা হয়। পরদিন ২৪ ফেব্রুয়ারি রাত সাড়ে ১২টার দিকে গুলশান থানার পুলিশের হাতে মান্নাকে হস্তান্তর করে র‌্যাব। তখন সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের বিদ্রোহে প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে মান্নার বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ১৩১ ধারায় গুলশান থানায় মামলা করে পুলিশ। ২৫ ফেব্রুয়ারি ওই মামলায় আদালতে হাজির করে পুলিশ তাঁকে ১০ দিনের রিমান্ডে নেয়। সেই রিমান্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই তাঁর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করা হয়।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *