মালালা-কৈলাসের নোবেল পুরস্কার গ্রহণ

নোবেল পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়েছে পাকিস্তানের শিশু শিক্ষাকর্মী মালালা ইউসুফজাই (১৭) ও ভারতের শিশু অধিকারকর্মী কৈলাশ সত্যার্থীর (৬০) হাতে।

নোবেল পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়েছে পাকিস্তানের শিশু শিক্ষাকর্মী মালালা ইউসুফজাই (১৭) ও ভারতের শিশু অধিকারকর্মী কৈলাশ সত্যার্থীর (৬০) হাতে।নোবেল পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়েছে পাকিস্তানের শিশু শিক্ষাকর্মী মালালা ইউসুফজাই (১৭) ও ভারতের শিশু অধিকারকর্মী কৈলাশ সত্যার্থীর (৬০) হাতে।

বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার তুলে দেয় নোবেল কমিটি।

প্রসঙ্গত,  শিশু ও তরুণদের ওপর নির্যাতন বন্ধে এবং সব শিশুর শিক্ষা অধিকার আদায়ে তাদের সংগ্রামের জন্য এ বছর শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান তারা।

পাকিস্তানী কিশোরী মানবাধিকারকর্মী মালালা ইউসুফজাই এবার যৌথভাবে ভারতের শিশু অধিকার বিষয়ক কর্মী কৈলাশ সত্যার্থী সাথে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার অর্জন করেন।

১৭ বছর বয়সী মালালা সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাবান এই পুরস্কারে ভূষিত হন। এখন পর্যন্ত গড়ে ৬১ বছর বয়সীরা নোবেল পুরস্কার অর্জন করেছেন। আর কৈলাস গত দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে ভারতে শিশু শ্রমের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে আসছেন, গড়ে তুলেছেন ‘বাচপান বাঁচাও’ আন্দোলন।

স্থানীয় সময় ৯ অক্টোবর শুক্রবার নরওয়ের রাজধানী অসলোতে নোবেল শান্তি কমিটি ২০১৪ সালের নোবেল জয়ী হিসেবে মালালার নাম ঘোষণা করে। দুবছর আগে এই দিনেই, অর্থাৎ ৯ অক্টোবর পাকিস্তানের সোয়াতে তালেবান যোদ্ধারা মালালাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়, যে ঘটনা বিশ্বব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি করে। এরপর রাতারাতি বিশ্ব তারকায় পরিণত হন মালালা।

গত ১০ অক্টোবর পুরস্কার ঘোষণা করে নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *