ধর্মীয় পরিচয় নয়, মানবিকতার জয়
আন্তর্জাতিক

ধর্মীয় পরিচয় নয়, মানবিকতার জয়

ধর্মীয় পরিচয় নয়, মানবিকতার জয়। রক্তের কোনো জাতপাত নেই, সব থেকে বড় ধর্ম মানবিকতা। প্রমাণ করল এক হিন্দু ও এক মুসলিম পরিবার। স্ত্রীদের জীবন বাঁচাতে হিন্দু ব্যক্তি কিডনি দান করলেন মুসলিম গৃহবধূকে। আর মুসলিম ব্যক্তি কিডনি দিলেন সেই হিন্দুর স্ত্রীকে।

মানবিকতার অনন্য নজিরের সাক্ষী থাকল জয়পুর। কিডনি দাতারা একসুরেই জানালেন, “মানুষের জীবনটাই তো আসল, তাই আমরা ভিন্ন ধর্মের হয়েও একে অন্যের স্ত্রীকে কিডনি দান করেছি।”

জয়পুরের বেসরকারি হাসপাতালটির তরফে জানানো হয়েছে, বিনোদ মেহরার স্ত্রী গত ৫ বছর ধরে কিডনির সংক্রমণে ভুগছিলেন। তার কিডনি প্রতিস্থাপনের প্রয়োজন ছিল। স্ত্রীকে কিডনি দিতে চেয়েছিলেন বিনোদবাবু। কিন্তু বাধ সাধে ব্লাড গ্রুপ।

বিনোদবাবুর স্ত্রীর ব্লাড গ্রুপ ছিল এ পজিটিভ। অপরদিকে বিনোদবাবুর এ পজিটিভ। ঠিক সেই সময় ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হন আনোয়ার আহমেদ। তার স্ত্রী তাসলিম জাহান (Tasleem Jahan) কিডনির প্রয়োজন ছিল। তার ব্লাড গ্রুপও স্বামীর সঙ্গে মিলছিল না।

ফলে বিনোদ মেহরা (Vinod Mehra) ও আনোয়ার আহমেদ (Anwar Ahmed) সিদ্ধান্ত নেন, তাঁরা নিজেদের কিডনি একে অন্যের স্ত্রীকে দান করবেন। যেই কথা সেই কাজ। সফলভাবে দু’জনে কিডনি দান করেন।

গত সোমবার হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন বিনোদ মেহরা ও আনোয়ার আহমেদ। হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছে, গৃহবধূ দু’জনও সুস্থ রয়েছেন।

হাসপাতালের চিফ নেফ্রোলজিস্ট আশুতোষ সোনি জানিয়েছেন, “বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নারীরাই কিডনি দান করে থাকেন। কিন্তু এক্ষেত্রে স্বামীরাই এগিয়ে এসেছেন স্ত্রীদের বাঁচাতে।” পাশাপাশি ধর্মীয় ভিন্নতা যে এক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি তাও একবাক্যে মেনে নিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এদিকে খুশির হাওয়া দুই পরিবারে। তবে বিনোদ মেহরা ও আনোয়ার আহমেদ একে অপরকে ধন্যবাদ জানিয়ে ক্ষান্ত থাকেননি। বরং তারা একে অপরের সঙ্গে ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে যুক্ত হয়েছেন।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *