এবারও বিশ্ব সেরা ফুটবলারের স্বীকৃতি আদায় করে নিয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।
খেলা

ব্যালন ডি’অর রোনালদোর

এবারও বিশ্ব সেরা ফুটবলারের স্বীকৃতি আদায় করে নিয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে এবারও বিশ্ব সেরা ফুটবলারের স্বীকৃতি আদায় করে নিয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। অপর দুই প্রতিদ্বন্দ্বী লিওনেল মেসি এবং ম্যানুয়েল নয়ারকে বেশ বড় ব্যবধানে পেছনে রেখেই মাথায় পরেছেন সেরার মুকুট। ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচন প্রক্রিয়ায় রোনালদো পেয়েছেন মোট ৩৭ দশমিক ৭০ শতাংশ ভোট। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা লিওনেল মেসি পেয়েছেন ১৫ দশমিক ৭৬ শতাংশ আর ম্যানুয়েল নয়্যারের ভোট ১৫ দশমিক ৭২ শতাংশ ।

সুইজারল্যান্ডের জুরিখে গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ১১টায় শুরু হয় জাঁকজমকপূর্ণ মূল অনুষ্ঠান। নানা আনুষ্ঠানিকতা, ব্যালন ডি’অর মনোনীতদের বক্তব্য আর বিভিন্ন ফটোসেশনের মধ্য দিয়েই এগুতে থাকে মূল অনুষ্ঠান এরপর পুরস্কার দেওয়ার পালা।

সর্বপ্রথম দেওয়া হয় বর্ষসেরা মহিলা দলের কোচের পুরস্কার। এরপর দেওয়া হয় পুরুষ দলের বর্ষসেরা কোচের পুরস্কার। বিশ্বকাপজয়ী কোচ জোয়াকিম লো- আনচেলত্তি আর দিয়েগো সিমিওনেকে হারিয়ে সেরা কোচের পুরস্কারটি জেতেন।

এরপর ফিফা-ব্যালন ডি’অর তথা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার তুলে দেওয়া হয় রোনালদোর হাতে। ফ্রান্সের ফুটবলার থিয়েরি অঁরি সেরা ফুটবলার হিসেবে রোনালদোর নাম ঘোষণা করেন। মঞ্চে ফিফা সভাপতি সেপ ব্লাটারের কাছ থেকে পুরস্কার নেন তিনি।

গত বছর বিশ্বসেরার স্বীকৃতি পেয়ে আনন্দে ভীষণ কেঁদেছিলেন রোনালদো। আবেগ সংক্রমিত হয়েছিল তার অসংখ্য ভক্তের মধ্যেও। কিন্তু এবার তিনি কাঁদেননি। বরং দৃপ্ত পায়ে এগিয়ে গেছেন মঞ্চের দিকে। মনে হয় আগে থেকেই তিনি আত্মবিশ্বাসী ছিলেন। প্রস্তুত ছিলেন এ পুরস্কারের জন্য।

এবার পুরস্কার হাতে নেওয়ার সাথে সাথে রোনালদো আনন্দে ফেটে পড়েন। ব্যাপক উল্লাসে মাতেন। গতবারের মতো এবারও তার আদরের ধন ছোট্ট পুত্রকে ডেকে নেন মঞ্চে। মঞ্চে আসেন রত্নগর্ভা মা দোলোরেস আভেইরা। আনন্দে জড়িয়ে ধরেন ছেলেকে।

পুরস্কার জেতার পর রোনালদো টুইট করেছেন। এতে তিনি লেখেন, ‘অবিশ্বাস্য সব মুহূর্তে পূর্ণ ছিল ২০১৪ সাল। সবাইকে ধন্যবাদ।’

২০০৮ সালে ফিফা বর্ষসেরার পুরস্কার জিতেছিলেন রোনালদো। ২০০৯ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত টানা ৪ বছর ফিফা বর্ষসেরার পুরস্কার ব্যালন ডি’অর জিতেছিলেন বার্সা তারকা লিওনেল মেসি। গত বছর মেসিকে হারিয়ে পুরস্কারটি জিতে নেন রোনালদো।

সর্বশেষ উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্সলিগসহ রিয়াল মাদ্রিদকে ৪ টি শিরোপা উপহার দেওয়ার সঙ্গে সর্বাধিক ৬১টি গোল করেছিলেন তিনি। লিওনেল মেসি নিজের দেশ আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপের ফাইনালে তুললেও শিরোপা জিততে পারেননি। শুধু তাই নয়, ক্লাবের হয়েও কোন কিছুই জিততে পারেননি তিনি গত বছর।

কলম্বিয়ান সেনসেশন হামেশ রদ্রিগেজ পেয়েছেন সেরা গোলদাতার পুরস্কার ফিফা পুসকাস অ্যাওয়ার্ড। বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে উরুগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচের ২৮তম মিনিটে আবেল আগিলার হেডটি কাঁধের এক প্রান্ত দিয়ে নামাতে নামাতে শরীর ঘোরান রদ্রিগেস।

বল মাটিতে পড়ার আগেই ২৫ গজ দূর থেকে নেন বাঁ পায়ের দুরন্ত ভলি। উরুগুয়ে গোলরক্ষক ফের্নান্দো মুসলেকাকে ফাঁকি দিয়ে ক্রসবারের ভেতরের দিকে লেগে বল ঢুকে যায় জালে। আর ওই গোলের জন্য রদ্রিগেজের এই পুরস্কার।

জার্মানির নাদিনে কেসলার জিতেছেন মহিলা বর্ষসেরার পুরস্কার।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *