বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ২৪ নভেম্বর ধার্য্য করেছে আদালত।
জাতীয়

বেগম জিয়ার ২ মামলার পরবর্তী সাক্ষ্য ২৪ নভেম্বর

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ২৪ নভেম্বর ধার্য্য করেছে আদালত।বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ২৪ নভেম্বর ধার্য্য করেছে আদালত।

রবিবার বকশিবাজারের স্থাপিত আদালতের তৃতীয় বিশেষ জজ বাসুদেব রায় শুনানি শেষে এই দিন ধার্য্য করেন।

খালেদার উপস্থিতিতে শুনানি চলাকালে তার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন এ মামলায় উচ্চ আদালতে দায়ের করা রিটের লিভ-টু-আপিলের বিষয়টি উল্লেখ করে সময় আবেদন করেন।

শুনানিতে দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল সময় আবেদনের বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শুনে সাক্ষ্যগ্রহণ মুলতবি করে বিচারক আগামী ২৪ নভেম্বর পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য্য করেন।

এর আগে সকাল ১০টার দিকে খালেদা জিয়া তার গুলশানের বাসভবন থেকে রওনা হয়ে ১১টার দিকে আদালতে পৌঁছান। আদালতে তার হাজিরাকে ঘিরে ওই এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়।

এর আগে গত ২৬ অক্টোবর এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য থাকলেও হরতালে নিরাপত্তাহীনতার কারণ দেখিয়ে আদালতে হাজির হননি খালেদা। পরে সাক্ষ্যগ্রহণের দিন পিছিয়ে রবিবার পুনর্নির্ধারণ করে তাকে হাজির থাকার নির্দেশ দেন আদালত।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় গত ১৯ মার্চ খালেদা জিয়াসহ নয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদেশ দেন বিচারক বাসুদেব রায়ের আদালত।

এ অভিযোগ গঠনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে আবেদন করেন খালেদা জিয়া। হাইকোর্ট এ আবেদন খারিজ করে দিলে তিনি আপিল বিভাগে লিভ টু আপিল করেন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে দুর্নীতির অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন।

এতিমদের সহায়তা করার উদ্দেশ্যে একটি বিদেশি ব্যাংক থেকে আসা ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ এনে এ মামলা দায়ের করা হয়।

মামলার অপর আসামিরা হলেন- বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান খালেদাপুত্র তারেক রহমান, মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল ওরফে ‘ইকোনো কামাল’, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমান।

মামলাটি তদন্ত করে দুদকের সহকারী পরিচালক হারুনুর রশিদ খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ অপর চারজনকে অভিযুক্ত করে ২০০৯ সালের ৫ আগস্ট আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

এ সময় আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন, এ জে মোহাম্মদ আলী, জয়নাল আবেদীন, মাহবুব উদ্দিন খোকন, সানাউল্লাহ মিয়া, মাসুদ আহম্মেদ তালুকদারসহ শতাধিক আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *