জেনে নিন বিয়ে করার উপকারিতা ও প্রভাব

জেনে নিন বিয়ে করার উপকারিতা ও প্রভাব

808
2
SHARE

জেনে নিন বিয়ে করার উপকারিতা ও প্রভাবপুরুষদের একটা ধারনা আছে বিয়ে করলেই জীবনের সব সুখ শেষ৷ কিন্তু স্ট্যাটিসটিক্স অনুযায়ী বিবাহিত পুরুষেরা শুধু দীর্ঘজীবীই হন না, তারা সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হন এবং সুখী মানুষও হন।

সাহেবরা একটি কবিতাকে আপ্তবাক্য হিসেবে মেনে চলেন৷ সেটি এই রকম: ‘লাভ অ্যান্ড ম্যারেজ, লাভ অ্যান্ড ম্যারেজ/গো টুগেদার লাইক আ হর্স অ্যান্ড ক্যারেজ/দিস আই টেল ইউ ব্রাদার/ইউ কান্ট হ্যাভ ওয়ান উইদাউট দ্য আদার’৷ সহজ বাংলায়, শুধু প্রেম করলেই হবে না, পাশাপাশি বিয়েটাও করে ফেলতে হবে৷ প্রেম এবং বিয়ে একেবারেই ঘোড়া এবং গাড়ির মতো৷

সংখ্যাতত্ত্ব অনুযায়ী একা এবং অবিবাহিত পুরুষের তুলনায় বিবাহিত পুরুষের আয়ু অনেক বেশি৷ যে সব পুরুষ প্রেম করেন এবং বিয়েটাকে ক্রমশ পিছনে ঠেলতে থাকেন তারা যে খুব নিশ্চিন্ত জীবন কাটান তা নয়৷ কারণ, অবিবাহিত প্রেমের মধ্যে নানা ধরনের টেনশন এবং স্ট্রেস জড়িত৷ অনেক কিছুই করতে হয় অনিশ্চিত ভবিষ্যত্ মাথায় রেখে৷ এর মধ্যে ‘সেক্স’ একটা গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর৷ তার ফলেই মনের মধ্যে এসে ভিড় করে চাপ, শরীর এতেই নষ্ট৷ সমীক্ষা করে দেখা গিয়েছে শতকরা ৯৪ জন দম্পতি জানিয়েছেন, বিয়ের পর তারা অনেক নিশ্চিন্ত৷ আরও বিস্ময়ের এই সব দম্পতিরাই যখন বাবা-মা হন, তখন তাদের জীবন আরও বেশি নিশ্চিন্ত হয়ে ওঠে৷ এমন বাবা-মা হওয়া শতকরা ৫৭ জন জানিয়েছেন, শুধু বিয়ের পরই নয়, বাবা-মা হয়ে যাওয়ার পরে তাদের যৌন-জীবন এখন অনেক বেশি মধুর৷ তারা বিয়ের আগেকার দিনগুলো ভুলতে চান৷

একটি সমীক্ষা জানিয়েছে বিশেষ করে পুরুষদের স্বাস্থ্য এবং জীবনের ওপর বিয়ের প্রভাব প্রায় সিগারেট ছেড়ে দেওয়ার মতোই৷ এমনকী এক গবেষক তার পত্রে জানিয়েছেন, ‘সিগারেট খেলে যে কোনও পুরুষ মানুষের আয়ু গড় পড়তা ৭ বছর কমে যায়, সেই পুরুষ বিয়ে করলে তার জীবনের সঙ্গে যোগ হয় বাড়তি ৭ বছর৷ আর মেয়েদের ক্ষেত্রে আয়ু বেড়ে যায় ৩ বছর৷’

এমন অনেক মানুষ আছেন যারা সিঙ্গল, অথবা লিভ-ইন করেন, কিংবা কেউ আবার বিবাহ বিচ্ছিন্ন অথবা সম্প্রতি তার স্ত্রী বিয়োগ হয়েছে৷ এরা কেউই সেই অর্থে চরম অসুখী না হলেও, এদের তুলনায় বিবাহিত মানুষেরা অনেক বেশি সুখী৷ এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে সুখ নির্ভর করে পারিবারিক সম্পর্কের গুণাগুণের ওপর৷ কখনও তা রোজগারের ওপর নির্ভরশীল নয়৷ অর্থ সব সময় মানুষকে সুখী করে না তুলতে পারলেও বিবাহ মানুষকে সুখী করতে পারে৷ দেখা গিয়েছে একাকিত্ব মানুষকে বিষণ্ণ এবং অসুখী করে তোলে৷ একা মানুষের তুলনায় যারা বিয়ে না করেও একসঙ্গে থাকেন, দেখা গিয়েছে তারা কিছুটা বেশি সুখী৷ কিন্ত্ত স্ত্রীর সঙ্গে বসবাস করেন যারা তারা মানসিক এবং শারীরিকভাবে তুলনায় অনেক ভালো থাকেন৷

বিবাহিত জীবন শুধুই যে মানুষের শারীরিক স্বাস্থ্য ভালো করে তাই নয়, যারা মানসিক স্বাস্থ্যের অসুস্থতায় ভোগেন তাদেরও সুস্থ করে তোলে৷ এক মার্কিন সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে বিয়ের পর মানসিক স্বাস্থ্য বিশেষ করে পুরুষদের অনেক বেশি বেড়ে যায়৷ তুলনায় বিবাহ বিচ্ছিন্ন মানুষের মানসিক স্বাস্থ্য ক্রমশ অবনতির দিকে এগোয়৷ সমীক্ষা আরও জানিয়েছে পুরুষ এবং নারী উভয়ের ক্ষেত্রেই বিয়ে ব্যাপারটা ডিপ্রেশন কমাতে সহায়ক৷

Comments

comments