বিশ্বের অধিকাংশ ধনী থাকেন আমেরিকায়

বিশ্বের সবচেয়ে ধনী মানুষদের অধিকাংশ থাকেন আমেরিকায়। এশিয়ার মধ্যে এই সংখ্যা জাপানে সবচেয়ে বেশি।

বিশ্বের সবচেয়ে ধনী মানুষদের অধিকাংশ থাকেন আমেরিকায়। এশিয়ার মধ্যে এই সংখ্যা জাপানে সবচেয়ে বেশি।বিশ্বের সবচেয়ে ধনী মানুষদের অধিকাংশ থাকেন আমেরিকায়। এশিয়ার মধ্যে এই সংখ্যা জাপানে সবচেয়ে বেশি।

ক্রেডিট সুইস ব্যাংকের এক গবেষণা বলছে, বিশ্বে এ মুহূর্তে ৪৭ মিলিয়ন বা চার কোটি ৭০ লাখ মানুষ রয়েছেন যাদের প্রত্যেকের সম্পদের পরিমাণ কমপক্ষে ৭৮৯,০০০ মার্কিন ডলার।

সবচেয়ে ধনী এই ৪৭ মিলিয়ন মানুষের মধ্যে ১৮ মিলিয়নই থাকেন আমেরিকায়।

ইউরোপের মধ্যে অতি ধনীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি ফ্রান্সে—৩৫ লাখ। ব্রিটেনে এ সংখ্যা ২৯ লাখ।

মজার ব্যাপার জার্মানির অর্থনীতি ইউরোপের মধ্যে সবচেয়ে সবল হওয়ার পরেও, অতি ধনীর সংখ্যা এখানে ফ্রান্স বা বৃটেনের তুলনায় কম। বিশ্বের অতি ধনী ৪৭ মিলিয়নের মধ্যে জার্মানের সংখ্যা ২.৮ মিলিয়ন বা ২৮ লাখ। এর কারণ, যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন বা ফ্রান্সের তুলনায় জার্মানির ধনীদের স্থাবর সম্পত্তি কম, তাদের বাড়ির মালিকানা অপেক্ষাকৃত কম।

এশিয়ার অধিকাংশ ধনী জাপান, চীনে

বিশ্বের অতি ধনীদের সংখ্যা আমেরিকার পরে জাপানে, ৪০ লাখ।

এশিয়ার আরেকটি দেশে উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় ধনী লোক রয়েছে–কম্যুনিস্ট চীনে। সেদেশে এই সংখ্যা ১৬ লাখ।

তবে জনসংখ্যার তুলনায় সবচেয়ে সুইজারল্যান্ডে ধনীর সংখ্যা সবেচেয়ে বেশি। প্রতি দশজন সুইস নাগরিকের একজন ৭৯৮,০০০ ডলারের বেশি সম্পদের মালিক।

তবে জীবনযাত্রার ব্যয়ের হিসাব বিবেচনায় নিলে ৭৯৮,০০০ ডলারের মালিক হলেও অনেকেই হয়ত নিজেকে অতি ধনী মানতে রাজি হবেন না।

যেমন কেউ যদি লন্ডন শহরের কেন্দ্রে থাকেন, তাহলে এই টাকা দিয়ে আপনি এক বেডরুমের একটি ফ্লাটও হয়তো কিনতে পারবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *