‘বিএনপি ক্ষমতায় গেলে সম্প্রচার নীতিমালা বাতিল’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেছেন, বিএনপি আবার ক্ষমতায় গেলে সবার আগে সম্প্রচার নীতিমালা বাতিল করা হবে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেছেন, বিএনপি আবার ক্ষমতায় গেলে সবার আগে সম্প্রচার নীতিমালা বাতিল করা হবে।বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেছেন, বিএনপি আবার ক্ষমতায় গেলে সবার আগে সম্প্রচার নীতিমালা বাতিল করা হবে। শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে স্বৈরাচার প্রতিরোধ দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, স্বৈরাচার সংবাদপত্র ভয় পায়, সমালোচনাকে ভয় করে। বর্তমান একনায়কতন্ত্র অতীতের ধারাবাহিকতা। বর্তমান সরকার অতীতের স্বৈরাচারের চেয়েও নিষ্ঠুর বলে তিনি মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, সরকার গণতন্ত্রের আবরণে সংবাদপত্রকে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। সংবাদপত্রের ওপর যারাই হাত দিয়েছে, তাদের হাত পুড়ে গেছে। বিএনপি পুনরায় ক্ষমতায় গেলে কোন টেলিভিশন চ্যানেল বন্ধ করা হবে না। সাংবাদিকদের আর সাংবাদিকতার জন্য জেলে যেতে হবে না।

গণমাধ্যম দেশের চতুর্থ স্তম্ভ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘১৯৯০ সালে সাংবাদিকরা ঐক্যবদ্ধ ছিল বলেই সেই সময় সফলতা এসেছিল। এ কারণে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।’

সংবাদমাধ্যমের ওপর যেন কারো হাত না পড়ে সে বিষয়েও সবাইকে সজাগ থাকতে বললেন বিএনপির এই নেতা।

‘বিএনপি ক্ষমতায় গেলে কি করবে জনগণ এ বিষয়ে জানতে চায়’ উল্লেখ করে ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, ‘খালেদা জিয়া ক্ষমতায় এলে এই সরকারের মিডিয়াবধ নীতিমালা পরিবর্তন করবে ও সম্প্রচার নীতিমালা বাতিল করে দেবে। এছাড়াও কোনো সাংবাদিক নির্যাতন হবে না, সাংবাদিকদেরকে জেলে পাঠানো হবে না এবং কোনো পত্রিকাও বন্ধ করে দেয়া হবে না।’

সাবেক এই আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সরকার প্রতিষ্ঠা হলে গণতন্ত্র ও সুচিন্তিত প্রতিষ্ঠানগুলোকে স্বাধীন রাখব। বিচার বিভাগের হস্তক্ষেপ বন্ধ করে জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা করব। আমরা ক্ষমতায় এলে ভবিষ্যতে সংসদকে নতুন রাজনৈতিক সংস্কৃতি গঠনে সাহায্য করব। দুদক, পাবলিক সার্ভিস কমিশন, নির্বাচন কমিশনসহ অন্যান্য কমিশনকে স্বাধীন রাখব, যেন নির্বাচন কমিশনের তত্ত্বাবধানে সবাই নিরাপদে যাকে খুশি তাকে ভোট দিতে পারে সে বিষয়ে সকল রাজনৈকি হস্তক্ষেপ বন্ধ করব। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে যত স্বাধীনতা প্রয়োজন তা দেয়া হবে। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে গণতন্ত্র সুনির্দিষ্ট করবে।’

তিনি বিএনপির আন্দোলনের বিষয়ে বলেন, ‘বিএনপির এই আন্দোলন ক্ষমতায় যাওয়ার নয়। এটি গণতন্ত্রে ফিরে যাওয়ার আন্দোলন। এটি অব্যাহত থাকবে। গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে এই আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।’

গণতন্ত্রের এই আন্দোলনে সবাইকে অংশ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে মওদুদ আহমেদ বলেন, ‘এদেশে কোনোদিনই একদলীয় সরকার মানুষের মন জয় করতে পারেনি। আমাদের আন্দোলনে সেই ইচ্ছাশক্তি প্রকাশ পাবে। তাই বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে ক্ষমতায় যেতে পারি আর না পারি গণতন্ত্র ফিরে আসুক এটি সবসময়ই চাই।’

উল্লেখ্য, এর আগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে দীর্ঘদিন পর উপস্থিত হতে দেখা গেছে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদকে। এরপর সেখানে ‘সবুজ সঙ্কেত’ পাওয়ায় তিনি আবার সক্রিয় হতে শুরু করেছেন।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন- বিএফইউজের সিনিয়র সহসভাপতি এম আবদুল্লাহ।

আরও বক্তব্য দেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ, গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *