সুন্দরবনের শ্যালা নদীতে ট্যাংকার ডুবির ঘটনায় সাত সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করেছে বিএনপি। বিএনপি বলছে, ‘এটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন একটি তদন্ত কমিটি।’
জাতীয়

ট্যাংকার ডুবির ঘটনায় বিএনপির তদন্ত কমিটি

সুন্দরবনের শ্যালা নদীতে ট্যাংকার ডুবির ঘটনায় সাত সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করেছে বিএনপি। বিএনপি বলছে, ‘এটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন একটি তদন্ত কমিটি।’সুন্দরবনের শ্যালা নদীতে ট্যাংকার ডুবির ঘটনায় সাত সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করেছে বিএনপি।  বিএনপি বলছে, ‘এটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন একটি তদন্ত কমিটি।’

চারদলীয় জোট সরকার আমলের পানি সম্পদমন্ত্রী ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিনকে এই কমিটির প্রধান করা হয়েছে। আগামী ২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে কমিটি তাদের তদন্ত প্রতিবেদন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে দেবেন।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বরাত দিয়ে চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শাইরুল কবীর খান এ তথ্য জানিয়েছেন।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- খুলনা বিভাগীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু, খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, খুলনা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মনা, বাগেরহাট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুস সালাম, পরিবেশ আন্দোলনের নেতা ড. ফরিদুল ইসলাম এবং পরিবেশবাদী সাংবাদিক কামরুল ইসলাম।

৯ ডিসেম্বর মঙ্গলবার ভোরে শ্যালা নদীর মৃগামারী (মংলা) এলাকায় তেলবাহী একটি ট্যাংকার ডুবে যায়। এতে ওই ট্যাংকারে থাকা সাড়ে তিন লাখ লিটারেরও ফার্নেস অয়েল ছড়িয়ে পড়ে সুন্দরবনের শ্যালা নদীতে।

এ ঘটনার পর থেকেই সুন্দরবনের জীববৈচিত্রের উপর ব্যাপক বিরুপ প্রভাবের আশঙ্কা করছিলেন পরিবেশবাদীরা।

তবে ঘটনার ১০ দিন পর শুক্রবার শ্যালা নদী পরিদর্শন শেষে পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু সাংবাদিকদের বলেন, ‘ট্যাংকার ডুবে তেল ছড়িয়ে পড়ায় সুন্দরবনের অবশ্যই ক্ষতি হয়েছে, কিন্তু যে পরিমাণে আমরা আশঙ্কা করেছিলাম সেই পরিমাণে ক্ষতি হয়নি।’

তবে এর আগে নৌমন্ত্রী শাজাহান খান দাবি করেছিলেন, ‘কালো তেলে সুন্দরবনের কোনো ক্ষতি হয়নি।’ পরিবেশ ও বনবিভাগ শ্যালা নদী দিয়ে স্থায়ীভাবে নৌযান চলাচল বন্ধের সুপারিশ করলেও তা নাকচ করে দেন তিনি।

অন্যদিকে বিএনপি প্রথম থেকেই ঘটনাটিকে ভিন্ন চোখে দেখছে। তারা এই ঘটনাকে ‘পরিকল্পিত’ দাবি করেছে। সর্বশেষ শনিবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘সরকার সুন্দরবনকে নিঃশেষ করার চক্রান্তে লিপ্ত রয়েছে। তাই সুন্দরবনের পাশে রামপালে ভারতীয় বিষাক্ত কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্মাণ কাজ শুরু করেছে। সরকার পরিকল্পিতভাবে শ্যালা নদীতে ফার্নেস অয়েল ভর্তি অবৈধ ট্যাংকার ডুবিয়ে দিয়েছে।’

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *