বাংলাদেশের টাইগার উডস মোহাম্মদ সিদ্দিকুর রহমান
খেলা

বাংলাদেশের টাইগার উডস মোহাম্মদ সিদ্দিকুর রহমান

বাংলাদেশের স্বনামধন্য গলফার মোহাম্মদ সিদ্দিকুর রহমান। তিনি ব্রুনাইয়ে ২০১০ সালে বাংলাদেশের পক্ষে প্রথম গলফার হিসেবে এশিয়ান ট্যুরের খেতাব জয় করেন। বাংলাদেশের টাইগার উডস সিদ্দিকুর রহমানকে নিয়ে বিস্তারিত জেনে নিন।

জন্ম ও শৈশব
১৯৮৪ সালের ২০ নভেম্বর মাদারীপুরের এক গরীব পরিবারে সিদ্দিকুরের জন্ম হয়। তার পারিবারিক নাম মোহাম্মদ সিদ্দিকুর রহমান। বাবার নাম আফজাল হোসেন, মা মনোয়ারা বেগম। পরিবারে চার ভাইয়ের মধ্যে সিদ্দিকুরের অবস্থান তৃতীয়। জন্ম থেকেই প্রচণ্ড অভাবের মধ্যে বেড়ে উড়েছেন তিনি। বাংলাদেশের স্বাধীনতার পরে তার বাবা আফজাল হোসেন অভাব থেকে মুক্তি পেতে ঢাকার অদূরে ধামালকোটের বস্তিতে আস্তানা গাড়েন। সেই সন্ত্রাসময় স্থানটিতেই বেড়ে উড়তে থাকেন সিদ্দিকুর।

এক সময় সিদ্দিকুর তার পাশের বাড়ির এক ছেলের সঙ্গে ঢাকার কুর্মিটোলায় অবস্থিত গলফ ক্লাবে উপস্থিত হওয়ার সুযোগ পান। গলফকে কাছ থেকে দেখার সুযোগ পান। খেলাটিকে মনে ধরে তার। ফলে দ্বিতীয় শ্রেণিতে থাকাকালীন বল বয় হিসেবে কাজ নেন তিনি। বদলে যেতে থাকে সিদ্দিকুরের মানসপট। বদলায় তার লক্ষ্যও। গলফকে কেন্দ্র করেই চিন্তা-ভাবনা শুরু হয় তার। এ সময় খেলাটির প্রতি সিদ্দিকুরের ভালোবাসা তাকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নেয়।

বলবয় থেকে ‘ক্যাডি’ পদে পদোন্নতি হয় তার। এবার তিনি খেলোয়াড়দের পেছন তাদের সরাঞ্জাম বহন করার ও টুকটাক সহায়তা করার সুযোগ পান। এভাবে গলফের পোকা মাথায় ঢোকে সিদ্দিকুরের। ফলে তিনি তার জমানো সামান্য কিছু আয় (৩০) দিয়ে লোহার রড দিয়ে গলফ ক্লাবের মতো একটা কিছু তৈরি করে নেন। লেখাপড়ার সঙ্গে সঙ্গে শুরু করেন তার অপেশাদার গলফ জীবন।

গলফের প্রাথমিক জীবন
২০০০ সালের দিকে বাংলাদেশ গলফ ফেডারেশনের কর্মকর্তাদের উদ্যোগে দেশে প্রতিযোগিতামূলক গলফে বলবয়-ক্যাডি হয়ে আসা সুবিধাবঞ্চিত গলফারদের সুযোগ হয়। আর সেই সুযোগে কোচের অধীনে শুরু হয় সিদ্দিকুর রহমানের অনুশীলনও। তখন নিজের ধৈর্য্য ও আগ্রহ দিয়ে নিজেকে আর সবার থেকে অনেকটা এগিয়ে নেন দেশসেরা এই গলফার। এক সময় কোচেরও মন জয় করেন তিনি। যা তার গলফ জীবনকে আরেক ধাপ এগিয়ে নেয়। অনুশীলন বাড়িয়ে দেন তিনি। এক সময় আসতে শুরু করে ট্রফি। একে একে ১২টি অপেশাদার গলফের শিরোপা জেতেন সিদ্দিকুর। অপেশাদার গলফে সিদ্দিকুরের এই সাফল্য তাকে টেনে নিয়ে আসে পেশাদার গলফে। ২০০৮ সালে অ্যামেচার গলফারের খেতাব ঝেড়ে ফেলেন তিনি। কিন্তু যথারীতি সাফল্য তার সঙ্গী। ২০০৮-০৯ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ ও ভারতে চারটি পেশাদার শিরোপা জেতেন সিদ্দিকুর।

পুরস্কার ও সম্মাননা
সিদ্দিকুর রহমান ১২টি অপেশাদার গলফ টুর্নামেন্ট জয় করেছেন। এর মধ্যে বাংলাদেশে জিতেছেন পাঁচটি, পাকিস্তান, নেপাল ও শ্রীলংকায় জিতেছেন দুটি করে, আর একটি জিতেছেন ভারতে। ২০১০ সালে প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে এশিয়ান ট্যুরে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পান সিদ্দিকুর। ওই বছরেই এশিয়ান ট্যুরে ব্রুনাই ওপেনের শিরোপা জেতেন তিনি। এরপর ২০১৩ সালের আগস্ট মাসে হিরো ইন্ডিয়া ওপেন গলফে এশিয়ান ট্যুরের দ্বিতীয় খেতাব জেতেন সিদ্দিকুর। প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত২০১৩ সালের গলফ বিশ্বকাপেও অংশ নেন দেশসেরা এই গলফার। তবে লক্ষ্য পূরণ করতে পারেননি। ৬০ প্রতিযোগীর মধ্যে ৫৫তম হন তিনি।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *