বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পরামর্শ দিয়ে বিএসএমএমইউ থেকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে ফেরত পাঠানো হয়েছে।
জাতীয়

অসুস্থ মির্জা ফখরুলকে কারাগারে ফেরত

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পরামর্শ দিয়ে বিএসএমএমইউ থেকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে ফেরত পাঠানো হয়েছে।বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পরামর্শ দিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) থেকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার সকালে তাকে অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকায় পাঠিয়েছিল কারা কর্তৃপক্ষ।

এর আগে সকালে তাকে হাসপাতালে আনার পরেই বিএসএমএমইউ পরিচালক মির্জা ফখরুলের জন্য দ্রুত একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করেন। প্রফেসর ডাক্তার রফিকুল ইসলামকে প্রধান করে গঠিত মেডিকেল বোর্ড হাসপাতালেই মির্জা ফখরুলের স্বাস্থ্য পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নেয়। হাসপাতালের কেবিন ব্লকে ৬ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড দীর্ঘ সময় ধরে তার সমস্যার কথা শোনেন।

চিকিৎসকেরা জানান, ফখরুল তাদেরকে মাথা ঘুরানো এবং কোমরে ব্যাথার কথা জানিয়েছেন। এ সমস্যাগুলো শোনার পর তার জন্য কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুপারিশ করে বোর্ড। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান বিএসএমএমইউ’র পরিচালক।

হাসপাতালে ভর্তির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘যেসব পরীক্ষা-নিরীক্ষার তালিকা বোর্ড তাকে দিয়েছে সেগুলোর জন্য হাসপাতালে ভর্তির প্রয়োজন নেই। মির্জা ফখরুল সুস্থ আছেন। যেসব পরীক্ষাগুলো করতে বলা হয়েছে সেসব বর্হিবিভাগ থেকেই করানো যায়’।

উন্নত চিকিৎসায় বিদেশ নিতে চাইছে পরিবার

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উন্নত চিকিৎসায় বিদেশ নিতে চাইছে পরিবার।

মির্জা ফখরুলের স্ত্রী রাহাত আরা বেগম বলেছেন, তার স্বামী যেসব রোগে ভুগছেন, তার চিকিৎসা বাংলাদেশে নেই। উন্নত চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে নেয়া উচিত।

তিনি বলেন, ‘আশা করছি, সরকার মির্জা ফখরুল ইসলামকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যেতে জামিন কিংবা অনুমতি দিবে।’

সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ি পোড়ানোসহ ৭৬ মামলার আসামি মির্জা ফখরুল প্রায় পাঁচ মাস ধরে কারাঅন্তরীণ। একাধারে এতদিন বন্দি থাকায় তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে দাবি পরিবারের।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মির্জা ফখরুলের মস্তিষ্কের ধমনিতে দুটি ব্লক ধরা পড়েছে, যার ৮০ ভাগই অকেজো বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। যে কোনো সময় ব্রেন স্ট্রোকের আশঙ্কা রয়েছে তার।

এছাড়া বিএনপির এই শীর্ষনেতার হার্টেও তিনটি ব্লক ধরা পড়েছে। এগুলোয় অবশ্য রিং পরানো হয়েছে। তবে একটি ব্লক ৯০ ভাগ, যাতে কোনো রিং পরানো হয়নি। যে কোনো সময় হার্ট অ্যাটাক হতে পারে তার।

পারিবারিক সূত্র আরো জানায়, মির্জা ফখরুল উচ্চ রক্তচাপ, আইবিএস, মেরুদণ্ড, দাঁতের সমস্যাসহ আরো বেশ কয়েকটি রোগে ভুগছেন। সম্প্রতি কাশিমপুর থেকে তাকে দুবার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল হাসপাতালেও আনা হয়। কিন্তু সেখানেও তার সুচিকিৎসা মেলেনি। বরং কারাগার থেকে আনা-নেওয়ায় শারীরিকভাবে আরো অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বিএনপির এই ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব।

জানা গেছে, বর্তমান সরকারের আমলে ছয়বার জেল খেটেছেন মির্জা ফখরুল। ৭৬টি মামলার মধ্যে ২৮টিতে তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়া হয়েছে।

এছাড়া আরো কিছু মামলায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের প্রক্রিয়া প্রায় সম্পন্ন। এর মধ্যে গাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ২৯ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য ৩০ জুলাই দিন ধার্য করেছে আদালত।

সর্বশেষ গত ৬ জানুয়ারি জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে গ্রেফতার হন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ওই রাতে গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে রেখে পরদিন গাড়ি পোড়ানোর অভিযোগে পল্টন থানায় দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

পরের দিন এ মামলায় আদালতে তার ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে বিচারক রিমান্ড এবং জামিনের দুটি আবেদনই নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *