partho-barua

ব্যান্ড সঙ্গীতের উজ্জ্বল নক্ষত্র পার্থ বড়ুয়া

পার্থ বড়ুয়া বাংলাদেশের ব্যান্ড সঙ্গীতের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র ও খুব পরিচিত একটি নাম। সেই ১৯৮৯ সাল থেকে সোলস ব্যান্ডের সাথে আছেন এবং এখনও সোলসকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন নাসিম আলী খানকে সঙ্গে করে। নকীব খান, পিলু খান, তপন চৌধুরী, আইয়ুব বাচ্চুদের পর সোলসকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্বটা কাঁধে তুলে নেন।

পার্থ বড়ুয়া শুধুই একজন মেধাবী গিটারিস্ট নন, পার্থ একজন মেধাবী কণ্ঠশিল্পী, সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালকও বটে। চট্টগ্রাম থেকে উঠে আসা যে সকল মেধাবী তরুণরা আমাদের ব্যান্ড সঙ্গীতকে করেছিল সমৃদ্ধ পার্থ তাঁদের অন্যতম একজন। সোলস এবং সোলসের বাহিরে পার্থের গাওয়া বেশ কিছু জনপ্রিয় গান আছে যা আমাদের সোনালি সময়ের ব্যান্ড সঙ্গীতকে করেছিল সমৃদ্ধ।

৯০ দশকের শুরুর দিকে ব্যান্ডের সলো অ্যালবামের পাশাপাশি শ্রোতাদের কাছে দারুন জনপ্রিয়তা পায় ‘ব্যান্ড মিক্সড অ্যালবাম’ ধারার নতুন যুগের ব্যান্ড অ্যালবামগুলো যার শুরুটা করেছিলেন বাংলা ব্যান্ড সঙ্গীতের জীবন্ত কিংবদন্তী ও অনেক অনেক শ্রোতাপ্রিয় গানের সুরকার, সঙ্গীত পরিচালক, চাইম ও আর্ক ব্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা সুপ্রিয় আশিকুজ্জামান টুলু।

সাউন্ডটেকের ব্যানারে প্রকাশিত ‘স্টারস’ অ্যালবাম দিয়ে আশিকুজ্জামান টুলু যে ব্যান্ড মিক্সড অ্যালবামের পরিচয় ঘটান খুব দ্রুত সেটা হয়ে যায় ৯০ দশকের অডিও বাজারের হটকেক এবং খুবই সফল একটি প্রজেক্ট। সেই সময়ে ব্যান্ড মিক্সড অ্যালবাম মানে দেশসেরা সব ব্যান্ডের তারকা কণ্ঠদের একসাথে একই অ্যালবামে পাওয়া যার ফলে শ্রোতাদের মাঝে শুরু থেকেই জনপ্রিয়তা লাভ করে এবং অডিও ইন্ডাস্ট্রি পেয়েছিল আশিকুজ্জামান টুলু, প্রিন্স মাহমুদ, আইয়ুব বাচ্চু, আশরাফ বাবু, জুয়েল বাবুর মতো সব মেধাবী সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালকদের সেরা কাজগুলো। ব্যান্ড মিক্সড অ্যালবাম ‘স্টারস’ থেকেই ব্যান্ড মিক্সড অ্যালবামগুলোতে যে সকল ব্যান্ড তারকাদের প্রায় নিয়মিত পাওয়া যেতো পার্থ বড়ুয়া ছিল তাঁদের অন্যতম।

আশিকুজ্জামান টুলুর স্টারস অ্যালবামেই পার্থে গাওয়া ‘আজ তোমাকে প্রয়োজন’ গানটি শ্রোতাদের পছন্দের তালিকায় চলে আসে। এরপর ‘তোমারই অপেক্ষায়’[ঝড়], ‘আয়োজন ফুরিয়ে গেছে’ [আলোড়ন], ‘অপ্সরা তুমি’ [ আমাদের ভালোবাসা], ‘এখনও কি মনে পড়ে’, ‘কেন সেই হৃদয়হীনা’ [শক্তি], ‘কাশফুল ঘাস পটে’ [টুগেদার], ‘চাইনা তোমার প্রেম’ [টুগেদার], ‘অভিমান করিনি’ [ওরা ১১ জন], ‘ অনেকটা সময়’ [ক্ষমা], ‘অভিমানে’ [ঘৃণা], ‘সময় আর কাটে না’ [ শেষ দেখা], ‘আমি ভুলে যাই’ [তারকা মেলা] , ‘মনে রাখবার মতো’ [চিরদুখী], ‘মনের আকাশ’ [আনন্দধারা], ‘ বন্ধ হয়ে গেছে’ [ টোন এন্ড টিউন], ‘সেই কবে’ [ভাঙ্গা মন], ‘দেখা হবে বন্ধু'[দেখা হবে বন্ধু], ‘ খেলার পুতুল [ হারজিৎ] সহ দারুন সব মন শীতল করা গান।

উল্লেখিত গানগুলোর মাঝে আমার ব্যক্তিগভাবে ভীষণ প্রিয় হলো আজ তোমাকে প্রয়োজন, তোমারই অপেক্ষায়, আমি ভুলে যাই তুমি আমার নও, চাইনা তোমার প্রেম, এখনও কি মনে পড়ে, অপ্সরা তুমি গানগুলো। ঝড় অ্যালবামে মেহেদির সাথে পার্থের গাওয়া ‘তোমারই অপেক্ষায়’ গানটি এক কথায় দুর্দান্ত একটি কম্পোজিশন যা শুনলে মনে হয় আজ নতুন কম্পোজ করা হয়েছে অথচ গানটির বয়স ২৪/২৫ বছর হবে। পার্থের সবগুলো গানের মাঝে একটা বিরহের ছাপ থাকতো। একটু আনমনা লাগতো, কিছুটা ক্ষোভ খুঁজে পাওয়া যেতো।

আশিকুজ্জামান টুলু, প্রিন্স মাহমুদ, আশরাফ বাবু কিংবা জুয়েল বাবু সবার সুরের মাঝেই পার্থের গানগুলোর একটা বৈশিষ্ট্য থাকতো যেনো গানটি পার্থের কণ্ঠকে ভেবেই লিখা ও সুর করা হয়েছে। আশিকুজ্জামান টুলুর সুর করা আজ তোমাকে প্রয়োজন, অপ্সরা তুমি, এখনও কি মনে পড়ে, মনের আকাশ গানগুলো শুনলেই বুঝা যায় গানগুলো টুলুর সুর ও এরেঞ্জ করা কারণ ঐ গানগুলোতে কিবোর্ডের একটা প্রাধান্য থাকতো। আবার প্রিন্স মাহমুদের অ্যালবামের গানগুলোতে পার্থের লিড গীটারের একটা প্রাধান্য থাকতো যা শুনলেই বুঝা যায় মিউজিকের আয়োজনটা পার্থের করা। তবে এইটুকু ঠিক যে প্রতিটি গানেই বৈচিত্র্য খুঁজে পাওয়া যেতো কথা ও সুরে। পুরো ৯০ দশক জুড়ে সোলস ব্যান্ডের অ্যালবামে পার্থের গাওয়া যত জনপ্রিয় গান আছে তার চেয়ে বেশী জনপ্রিয় গান আছে ব্যান্ড মিক্সড অ্যালবামে । পার্থ আজো আমার সমবয়সী সোনালি দিনের ব্যান্ড সঙ্গীতের সাক্ষীদের কাছে ব্যান্ড মিক্সড অ্যালবামের গানগুলোর জন্য জনপ্রিয় হয়ে আছেন। আমার কাছে রোমান্টিক পার্থের চেয়ে ‘নিঃসঙ্গ’ ‘বিরহী’ পার্থকে বেশী ভালো লাগে।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *