মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ-রুটের পদ্মা নদীতে দুই শতাধিক যাত্রী নিয়ে একটি লঞ্চডুবির ঘটনায় নারী ও শিশুসহ ৩৩ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।
সারাদেশ

পদ্মায় লঞ্চডুবিতে ৩৩ লাশ উদ্ধার

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ-রুটের পদ্মা নদীতে দুই শতাধিক যাত্রী নিয়ে একটি লঞ্চডুবির ঘটনায় নারী ও শিশুসহ ৩৩ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ-রুটের পদ্মা নদীতে দুই শতাধিক যাত্রী নিয়ে একটি লঞ্চডুবির ঘটনায় নারী ও শিশুসহ ৩৩ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

তবে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশুসহ ২৫ জনের জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ঘিওর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা জিহাদ হোসেন।

রবিবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে সারবাহী কার্গো জাহাজের ধাক্কায় লঞ্চটি ডুবে যায়।

এরপর বেলা দেড়টার দিকে নৌ পুলিশ ছয় মাস বয়সী একটি শিশু এবং সোয়া দুইটার দিকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা এক মহিলার মরদেহ উদ্ধার করে।

পরে ঢাকা ফায়ার সার্ভিসের রেসকিউ ও ডুবুরি দলের আট সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল বেলা পৌনে ৩টার দিকে ঘটনাস্থলে আসে।

তবে এখন পর্যন্ত তাদের নামপরিচয় জানাতে পারেনি ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা জিহাদ হোসেন।

লঞ্চডুবির খবরে পদ্মার পাড়ে হতাহতদের স্বজনেরা ভিড় জমাচ্ছেন। তাদের আহাজারিতে পদ্মার বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। স্বজনদের ভিড় সামলাতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

এদিকে, স্থানীয়ভাবে নৌ পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস হতাহতদের উদ্ধার তৎপরতা চালালেও লঞ্চটি উদ্ধারের কোনো কার্যক্রম শুরু হয়নি। মাওয়া থেকে উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা রওনা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

বিকেল ৫টার দিকে নৌপরিবহনমন্ত্রী শাহজাহান খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং উদ্ধার তৎপরতার খোঁজ-খবর নেন।

নিহতদের প্রত্যেককে ১ লাখ ৫ হাজার টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

নৌমন্ত্রী জানান, ঘটনা তদন্তে নৌ-মন্ত্রণালয়ের সচিব নুরুর রহমানকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবে।

লঞ্চডুবির ঘটনায় সারবাহী কার্গো এমভি নারগিস-১ আটক করা হয়। পরে কার্গোটির তিন লস্করকেও আটক করা হয়েছে।

এর আগে দৌলতদিয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আবদুল মুক্তাদির খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দুপুরে পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়া যাওয়ার পথে পদ্মা নদীতে এমএল মোস্তফা নামের লঞ্চটি দুই শতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যায়।

তিনি জানান, বাঘাবাড়িগামী এমভি নারগিস-১ নামে সারবাহী একটি কার্গো জাহাজের সঙ্গে ধাক্কা লেগে লঞ্চটি মাঝ নদীতে ডুবে যায়।

বিআইডব্লিউটিএ’র আরিচা নদীবন্দর কর্মকর্তা এনামুল হক ভূইয়া বলেন, দুর্ঘটনাটি মাঝ নদীতে হওয়ায় এখনও উদ্ধার তৎপরতা শুরু করা সম্ভব হয়নি। তবে স্থানীয়ভাবে আইটি জাহাজ, ট্রলার ও লঞ্চ সেখানে গিয়ে উদ্ধারকাজ করছে।

এ ঘটনায় কার্গো জাহাজ এমভি নারগিসকে আটক করা হয়েছে। আর প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে এসে উদ্ধারকাজ তদারকি করছেন বলে জানান তিনি।

এদিকে, দুর্ঘটনাকবলিত লঞ্চ থেকে সাঁতরে উদ্ধার পাওয়া যাত্রী বিমল চন্দ্র মণ্ডল, তাপস কুমার দাস ও তার বন্ধু আখতার মোল্লা বলেন, এমএল মোস্তফা লঞ্চে তারা ফরিদপুর যাচ্ছিলেন। মাঝ নদীতে পৌঁছানোর পর বাম দিক থেকে এসে কার্গো জাহাজটি লঞ্চকে ধাক্কা দেয়। এতে কয়েক মিনিটের মধ্যেই ডান দিকে কাত হয়ে লঞ্চটি ডুবে যায়।

লঞ্চটিতে দুই শতাধিক যাত্রী ছিল জানিয়ে তারা বলেন, দুর্ঘটনার পর আমরা সাঁতরে কার্গো জাহাজটির লাইফ টায়ার ধরে প্রাণে বেঁচে গেছেন।

উদ্ধার পাওয়া এই তিন যাত্রীর ভাষ্যে, দুর্ঘটনার পর ৫০-৬০ জন যাত্রী সাঁতরে তীরে উঠতে সক্ষম হয়েছেন। বাকিরা লঞ্চের মধ্যেই রয়েছেন।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *