নেপালের কাঠমান্ডুতে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৮তম সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের শুরুতে বুধবার বিকেলে সাইডলাইনে এক বৈঠকে মিলিত হন তারা।
আন্তর্জাতিক

নেপালে হাসিনা-মোদি বৈঠক

নেপালের কাঠমান্ডুতে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৮তম সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের শুরুতে বুধবার বিকেলে সাইডলাইনে এক বৈঠকে মিলিত হন তারা।নেপালের কাঠমান্ডুতে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৮তম সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের শুরুতে বুধবার বিকেলে সাইডলাইনে এক বৈঠকে মিলিত হন তারা।

জানা যায়, বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে ৩টার দিকে সিটি হলে এ বৈঠক হয়। এর আগে সকালে সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এই দুই প্রধানমন্ত্রী অংশ নেন।

এছাড়া আফগান প্রেসিডেন্ট ড. আশরায় গানি আহমাদ এবং মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট আব্দুলল্লা ইয়ামিন গাইয়ুমের সঙ্গেও শেখ হাসিনার বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল মঙ্গলবার সার্ক সম্মেলনে যোগ দেয়ার উদ্দেশ্যে ৬৩ সদস্যের এক প্রতিনিধি দল নিয়ে নেপাল গেছেন।

নেপালের প্রধানমন্ত্রী সুশীল কৈরালা বুধবার সকালে কাঠমান্ডুর সিটি হলে দু’দিনের এই শীর্ষ সম্মেলন উদ্বোধন করেন।

সম্মেলনে কৈরালার সঙ্গে আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গানি, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ভূটানের প্রধানমন্ত্রী টিশেরিং তোবগায়া, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ ইয়ামিন আব্দুল গাইয়ূম, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ এবং শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট মহিন্দ রাজাপাকসে যোগ দিয়েছেন।

এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য, ‘শান্তি ও উন্নয়নে গভীর সংহতি’।

উল্লেখ্য, ১৯৮৭ সালের নভেম্বর এবং ২০০২ সালের জানুয়ারির পর এনিয়ে তৃতীয়বার নেপালে সার্ক শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ২০০৮ সালে নেপাল ধর্মনিরপেক্ষ প্রজাতন্ত্রে পরিণত হওয়ার পর এই শীর্ষ সম্মেলন কূটনৈতিক দিক থেকে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

সম্মেলনে চীন, যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, মরিশাস, মায়ানমার, ইরান ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের ৯ জন পর্যবেক্ষকও যোগ দিয়েছেন।

আগামীকাল বৃহস্পতিবার কাঠমান্ডু ঘোষণা গ্রহণ এবং কয়েকটি আঞ্চলিক চুক্তি স্বাক্ষরের মধ্যদিয়ে কাঠমান্ডু সিটি হলে শীর্ষ সম্মেলন শেষ হবে। শীর্ষ সম্মেলনে মঙ্গলবার সমাপ্ত হওয়া সার্ক মন্ত্রিপরিষদের বৈঠক এবং এর আগে সার্ক মন্ত্রীদের সভার প্রতিবেদন নিয়ে আলোচনা হতে পারে।

শীর্ষ সম্মেলনে আঞ্চলিক পর্যায়ে তিনটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে পারে। এগুলো হচ্ছে- সার্ক এগ্রিমেন্ট অন মোটর ভেহিকেলস, সার্ক এগ্রিমেন্ট অন রেলওয়ে সার্ভিস এবং সার্ক ফ্রেমওয়ার্ক এগ্রিমেন্ট অন এনার্জি কো-অপারেশন।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *