কোনো নারীর উদ্দেশ্যে নয়, গাছকে সম্বোধন করে এভাবেই মেইল লিখেছেন এক ছাত্র। গাছের সঙ্গে অনেকেই কথা বলে থাকেন তাই বলে গাছের উদ্দেশ্যে মেইল!
আন্তর্জাতিক

নিয়ম করে গাছকে ‘ই-মেইল’ করে যে শহর

আমি তোমাকে খুঁজে পেয়েছি। প্রতিদিন ইউনিভার্সিটি যাওয়ার পথে তোমাকে দেখি। তুমি সবচেয়ে সুন্দর। তোমাকে অনেক ভালোবাসা।

কোনো নারীর উদ্দেশ্যে নয়, গাছকে সম্বোধন করে এভাবেই মেইল লিখেছেন এক ছাত্র। গাছের সঙ্গে অনেকেই কথা বলে থাকেন তাই বলে গাছের উদ্দেশ্যে মেইল! হ্যাঁ, এমনটাই হয়।

মেলবোর্নের মানুষ নিয়ম করে চিঠি লেখেন গাছকে। গত দু’বছরে গাছের জন্য ,মেইল লেখা হয়েছে প্রায় ৩,০০০।

শহরের সব গাছকে চিহ্নিত করা হয়েছে। একটি নির্দিষ্ট আইডি দেওয়া হয়েছে। সেই আইডি ধরেই করা হয় এই মেইল। শুধুমাত্র ভালোবাসা থেকেই এই নিয়ম তৈরি হয়নি। রীতিমত পরিকল্পনা করেই এটা শুরু করা হয়েছিল। ২০০৯ সালে খরায় মৃতপ্রায় হয়ে গিয়েছিল ৭৭,০০০ গাছের ৪০ শতাংশ। যে মেলবোর্নকে ‘গার্ডেন সিটি’ বলা হয়, সেই মেলবোর্নকে বাঁচাতে উদ্যোগী হয় একটি বিশেষ কমিটি। ইন্টারনেটে ম্যাপ তৈরি করে আলাদা করে চিহ্নিত করা হয় সবকটি গাছ থেকে। তারপর থেকেই চলছে এই রীতি। এর ফলে আলাদা আদর পায় গাছগুলি। বাঁচানো সম্ভব হয় তাদের। গাছের একটা পাতা পড়লেই সেই খবর রাখতে শুরু করে শহরবাসী।

গাছ বাঁচানোর এই মজার খেলায় মত্ত হয়ে ওঠে শহরবাসী। তারা প্রেম নিবেদন করে, রক্ষা করার জন্য ধন্যবাদ জানায়, কষ্ট দিলে ‘সরি’ লেখে। তেমনই এক প্রেমিকের চিঠি,

“Dear Green Leaf Elm, I hope you like living at St Mary’s. Most of the time I like it too. I have exams coming up and I should be busy studying. You do not have exams because you are a tree. I don’t think there is much more to talk about as we don’t have a lot in common, you being a tree and such. But I’m glad we’re in this together.”

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *