বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া সরকারকে অবৈধ উল্লেখ করে তিনি বলেন অবিলম্বে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে
সারাদেশ

‘অবিলম্বে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে’

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া সরকারকে অবৈধ উল্লেখ করে তিনি বলেন অবিলম্বে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবেবিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া সরকারকে অবৈধ উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়। জনগণের ভোটে নির্বাচিত না হলে সরকার পরিচালনার কোনো অধিকার থাকে না। অবিলম্বে নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে। তাদের দেশ পরিচালনার কোনো অধিকার নেই। অবৈধ সরকারের অধীনে কোনো উন্নয়ন হয় না। তাই জনগণের ভোটের অধিকার ফিরে পেতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়তে হবে।

সরকারের কাছে অবিলম্বে ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, সোজা আঙ্গুলে ঘি না উঠলে আঙ্গুল বাঁকা করতে হয়।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নীলফামারীর বড় মাঠে ২০-দলীয় জোট আয়োজিত জনসভায় তিনি এ কথা বলেন।

জনসভায় তরুণদের উদ্দেশে খালেদা জিয়া বলেন, ‘তোমরা ভোট দিতে চাও, কিন্তু সরকার তোমাদের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়েছে। অধিকার কেড়ে নেয়া হলে তা ফেরতে পেতে সহজ কথায় না হলে শক্ত আন্দোলন করতে হয়। সোজা আঙ্গুলে ঘি না উঠলে আঙ্গুল বাঁকা করতে হয়।’

নতুন নির্বাচনের আগেই নির্বাচন কমিশন ভেঙ্গে দেয়ার দাবি জানিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশন অথর্ব। এই অথর্ব কমিশন দিয়ে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়। সব দলের সম্মতির ভিত্তিতে নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য কমিশন গঠন করতে হবে।

‘আওয়ামী লীগের অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি, হবে না’ মন্তব্য করে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘নির্বাচন নিরপেক্ষ না হলে আপনারা কোনোদিন ভোটের অধিকার পাবেন না। আওয়ামী লীগ আপনাদের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে।’

নীলফামারী হাইস্কুল মাঠে ২০ দলীয় জোটের আয়োজিত জনসভায় বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এই অবৈধ সরকার মিথ্যার উপর ভর করে টিকে আছে। তাদের সঙ্গে জনগণ নেই। জনগণ আছে বিএনপির সঙ্গে।

‘ভোটকেন্দ্রে মানুষ না থেকে কুকুর বসে থাকে, তারা আবার জনপ্রতিনিধি হয় কীভাবে’ এমন প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ‘এ অবৈধ সরকার নতুন নতুন আইন করছে। সম্প্রচার নীতিমালা করছে। নির্বাচিত না হয়ে কোনো আইন করা যায় না। জনবিচ্ছিন্ন হয়েই সরকার নতুন নতুন আইন করছে।’

এর আগে নীলফামারী হাইস্কুল মাঠে বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় শুরু হওয়া এ জনসভায় জোটের স্থানীয় ও জাতীয় নেতারা বক্তব্য দেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিছুল আরেফিন চৌধুরী।

উপস্থিত জনতার উদ্দেশে খালেদা জিয়া বলেন, আপনারা আন্দোলন করেছেন। সারাদেশের মানুষ আন্দোলন করেছে। কিন্তু ঢাকা আন্দোলন করতে পারেনি। এবার ঢাকাও আন্দোলন করবে, আপনারাও আন্দোলন করবেন। এখন নয়, সময়মতো আন্দোলনের ডাক দেব।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে বিদায় করতে হবে। তারা র‌্যাব-পুলিশকে রক্ষীবাহিনী বানিয়ে ক্ষমতায় থাকতে চায়। রক্ষীবাহিনী দিয়ে তারা ৩০ হাজার মানুষ হত্যা করেছিল।

সরকারকেও খুনি-অত্যাচারী সরকার বলে আখ্যায়িত করেন তিনি।

এর আগে জোটনেত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বহনকারী গাড়িবহর দুপুর ২টার দিকে নীলফামারী সার্কিট হাউজে এসে পৌছায়।

বিএনপিতে যোগ দিয়েছে জাতীয় পার্টির-আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী

সরকার পতনের আন্দোলন ত্বরান্বিত করতে নীলফামারীতে বেগম খালেদা জিয়ার জনসভায় আনুষ্ঠানিকভাবে বিএনপিতে যোগ দিয়েছে জাতীয় পার্টির সাবেক সংসদ সদস্য এবং আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী।

বৃহস্পতিবার বিকেলে খালেদা জিয়ার হাতে ধানের শীষ তুলে দিয়ে নীলফামারী-৩ আসনের জাতীয় পার্টির সাবেক সংসদ সদস্য কাজী ফারুক কাদের এবং জেলা আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির সাবেক কয়েকজন প্রভাবশালী নেতাসহ বিপুল সংখ্যক কর্মী আনুষ্ঠানিকভাবে বিএনপিতে যোগ দেন।

অবশ্য এর আগেই বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা বিএনপির রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল হাবিব দুলু।

এদিকে, বিশ দলীয় জোটের এ জনসভাকে কেন্দ্র করে উত্তরবঙ্গের পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, দিনাজপুর, রংপুর, গাইবান্ধা ও নীলফামারী জেলার বিএনপি ও বিশ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের মধ্যে রীতিমত উৎসবের আমেজ দেখা দিয়েছে। দুপুর দুইটায় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে সমাবেশের কার্যক্রম শুরু হলেও সকাল থেকে হাজার হাজার নেতাকর্মী সমাবেশে যোগ দেওয়ার জন্য নীলফামারী হাইস্কুল বড় মাঠের দিকে আসতে থাকেন। সৈয়দপুরের পর থেকেই বিশেষ করে নীলফামারীর প্রবেশমুখ দাড়োয়ানী এলাকা থেকে জনসভা স্থলের ১২ কিলোমিটার রাস্তায় খালেদা জিয়ার গাড়িবহর জনতার ভীড় ঠেলে আসতে ঘন্টাখানেকেরও বেশি সময় লাগে।

দুপুর গড়ানোর আগেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে উঠে জনসভার বিশাল মাঠ। সকাল থেকে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক জামায়াতে ইসলামীর নেতাকর্মীদের আধিক্য চোখে পড়ে। মাথায় জামায়াতের পট্টি বেধে হাজার হাজার নেতাকর্মী মিছিল নিয়ে মাঠের দিকে আসেন। এর পর অন্য শরিক বাংলাদেশ ন্যাপ‘র নেতাকর্মীরা মাথায় লাল টুপি ও লাল জামা-গেঞ্জি পড়ে মিছিল নিয়ে সমাবেশে যোগ দেন। জাগপারও বেশ কিছু নেতাকর্মীকে রঙিন পোষাকসহ সমাবেশের দিকে মিছিল নিয়ে আসতে দেখা যায়।

জেলা বিএনপির সদস্য সচিব শামসুজ্জামান জামান আশা প্রকাশ করে বলেন, বিশ দলীয় জোটের সমাবেশে কমপক্ষে দশ লাখ মানুষ যোগ দেবেন।

বেলা সোয়া ৩টার দিকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সমাবেশের মঞ্চে আসেন। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জে.(অব.) মাহবুবুর রহমান, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাসসহ সিনিয়র নেতারা জনসভায় বক্তব্য দেন।

এ ছাড়া শরিক জোটের নেতাদের মধ্যে এলডিপির চেয়ারম্যান কর্নেল (অব.) অলি আহমদ, কল্যাণ পাটির চেয়ারম্যান মে.জে. (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম, জাগপা প্রধান শফিউল আলম প্রধান, বাংলাদেশ ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণি, ইসলামী ঐক্যজোটের মওলানা আবদুল লতিফ নেজামি, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মওলানা ইসহাক, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান আব্দালিব রহমান পার্থ, সাম্যবাদী দলের আবু সাইদ, জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য মজিবর রহমানসহ ২০ দলের শীর্ষ নেতারা বক্তব্য দেন।

স্থানীয় নেতাদের মধ্যে, জামায়াতে ইসলামীর জেলা সেক্রেটারি মওলানা আবদুর রশিদ, বিএনপি সহ সভাপতি আলমগীর সরকার, সাবেক মহিলা সংসদ সদস্য বিলকিস ইসলাম, সৈয়দপুর পৌর মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার ভজে, জলঢাকা উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ আলী, ডোমার পৌরসভা মেয়র মনসুরুল ইসলাম দানু, জেলা বিএনপি নেতা মীর সেলিম, মোস্তফা ফিরোজ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

জোটের অন্য নেতাদের মধ্যে জাগপা মহাসচিব খন্দকার লুৎফর রহমান, ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, কল্যণ পার্টির এমএম আমিনুর রহমান, বিএনপির বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক উপাধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলুসহ জেলা নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশের আগে জাসাসের শিল্পীরা বিভিন্ন সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

সমাবেশের জন্য ঢাকার ‘তাহের মাইক সার্ভিস’ থেকে আড়াইশত মাইক পুরো নীলফামারী শহরে লাগানো হয়েছে।

 

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *