bnp-nominates-advocate-shakhawat-for-ncc-polls

নাসিক নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী জেলা আইনজীবী ফোরাম সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেছে বিএনপি।

মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ।

তিনি বলেন, “সাখাওয়াত হোসেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি দলীয় প্রার্থী। দলের সবাইকে তার পক্ষে কাজ করার জন্য কেন্দ্র থেকে বলা হয়েছে।”

বিএনপির জেলা সভাপতি তৈমুর আলম খন্দকার প্রার্থী হতে অনাগ্রহ প্রকাশ করায় সোমবার রাতে জেলা নেতাদের সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বৈঠক করেন।

সেখানে জেলা নেতাদের মতামত নেয়ার পর তাদের উদ্দেশে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন খালেদা জিয়া। এ সময় তিনি বলেন, দল থেকে যাকেই মনোনয়ন দেয়া হবে তার পক্ষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেননি কারো বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

মূলত বৈঠকেই সাখাওয়াতের বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়। মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হলো।

সাখাওয়াত ছাড়া নাসিকে মনোনয়ন পেতে চেষ্টা করেছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য আবুল কালাম ও নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান। নারায়ণগঞ্জে আইনজীবী চন্দন সরকারসহ সাত খুনের ঘটনায় আইনজীবীদের আন্দোলনে নেতৃত্বে ছিলেন আইনজীবী সমিতির তখনকার সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন। সাত খুনের ঘটনায় দুটি মামলায় বাদীপক্ষের আইনজীবী তিনি।

জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর আলম খন্দকারকে দলের প্রার্থী হিসেবে প্রথম পছন্দ ছিল বিএনপির। তিনি নির্বাচন করতে রাজি না হওয়ায় বিএনপিকে নতুন প্রার্থী খুঁজে নিতে হয়।

২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী ছিলেন তৈমুর আলম খন্দকার। ভোট গ্রহণের সাত ঘণ্টা আগে তাঁকে কেন্দ্রের নির্দেশে বসিয়ে দেওয়া হয়।

২০১১ সালের ৫ মে নারায়ণগঞ্জ, সিদ্ধিরগঞ্জ ও কদমরসুল—এ তিনটি পৌরসভা বিলুপ্ত করে ২৭টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত হয় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন। একই বছর ৩০ অক্টোবর প্রথমবারের মতো সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শামীম ওসমানকে পরাজিত করে সিটির প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন সেলিনা হায়াৎ আইভী। তিনি বাংলাদেশের প্রথম নারী, যিনি সিটি করপোরেশনের মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে আইভী বিলুপ্ত নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন।

উল্লেখ্য, ১৪ নভেম্বর নাসিক নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২২ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র জমা নেওয়া হবে ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত। ২৬ ও ২৭ নভেম্বর বাছাই হবে আর ৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রার্থীতা প্রত্যাহার করা যাবে। ৫ ডিসেম্বর প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে।

১৮ নভেম্বর বর্তমান মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীকে মনোনয়ন দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *