ছাত্রী ধর্ষণ: পরিমল জয়ধরের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

বুধবার ঢাকা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৪ এর বিচারক সালেহ উদ্দিন আহমেদ এ রায় দেন।

বুধবার ঢাকা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৪ এর বিচারক সালেহ উদ্দিন আহমেদ এ রায় দেন।  ভিকারুননিসা নূন স্কুলের ছাত্রী ধর্ষণের মামলায় অভিযুক্ত শিক্ষক পরিমল জয়ধরের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে ৫০ হাজার টাকার জরিমানা, অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদণ্ডের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বুধবার ঢাকা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৪ এর বিচারক সালেহ উদ্দিন আহমেদ এ রায় দেন।

রায় ঘোষণার পর দণ্ডপ্রাপ্ত পরিমল বলেন, ‘আমি ২৯তম বিসিএসে ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে টিকেছিলাম। এ রায় দিয়ে আমার জীবনটা নষ্ট করা হলো। আসামিপক্ষ আমার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগই প্রমাণ করতে পারেনি। আমি নির্দোষ।’

মামলায় অভিযোগ থেকে জানা গেছে, ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের বসুন্ধরা শাখার দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে প্রলোভন দেখিয়ে ২০১১ সালের ২৮ মে ওই স্কুলের একটি কক্ষে ধর্ষণ করেন শিক্ষক পরিমল জয়ধর।

ওই সময় ওই ছাত্রীর নগ্ন ছবি তোলা হয় এবং মোবাইলে ভিডিও করা হয়। পরে ওই ভিডিও বাজারে ছাড়ার কথা বলে ওই বছরের ১৭ জুন ফের ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন পরিমল।

এ ঘটনায় ২০১১ সালের ৫ জুলাই রাজধানীর বাড্ডা থানায় মামলা করেন বসুন্ধরা শাখার দশম শ্রেণির সেই ছাত্রীর বাবা। ৬ জুলাই ঢাকার কেরানীগঞ্জে স্ত্রীর বড় বোনের বাসা থেকে পরিমলকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

২০১১ সালের ২৮ নভেম্বর পরিমল জয়ধরের বিরুদ্ধে গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মাহবুবে খোদা অভিযোগপত্র দেন। অভিযোগপত্রে বসুন্ধরা শাখার প্রধান লুৎফর রহমান ও অধ্যক্ষ হোসনে আরা বেগমকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

২০১২ সালের ৭ মার্চ পরিমল জয়ধরের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদালত। এই মামলায় মোট ৩৭ সাক্ষীর মধ্যে ২৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে এই রায় দিল আদালত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *