দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখার ৮ উপায়
সাময়িকী

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখার ৮ উপায়

দুর্ভাগ্য হলেও এ কথা সত্য যে বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে চোখও নানা অসুখে আক্রান্ত হয়, যা এড়াতে সময় মতো চোখের যত্ন নেয়া অত্যন্ত জরুরি৷ দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখার ৮ উপায় জেনে নিন।

১. চোখের মেকআপ
অনেকেই চোখ দু’টোকে আরো আকর্ষণীয় দেখাতে মেকআপ ব্যবহার করেন৷ তবে তারা অবশ্যই লক্ষ্য রাখবেন যে, সেই রূপচর্চার সামগ্রী যেন আপনার চোখের উপযুক্ত হয়৷ অর্থাৎ চোখের মেকআপে যেন সংরক্ষণকারী পদার্থ মেশানো না থাকে৷ কারণ রাসায়নিক পদার্থ থেকে চোখে নানারকম অ্যালার্জি এবং অন্যরকম ক্ষতিও হতে পারে৷

২. মুক্তবাতাস
শুধু ফুসফুস সুস্থ রাখতেই যে মুক্ত বাতাসের প্রয়োজন তা নয়, চোখের কর্নিয়া জন্যও চাই মুক্তবাতাস৷ কারণ চোখ নিজস্ব অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারে না৷ বিশেষ করে যারা দিনের বেশিরভাগ সময় বদ্ধ ঘরে কাজ করেন, তাদের জন্য মুক্ত বাতাসে হাঁটা বেশি জরুরি৷ এ কথা জানান জার্মানির লাইপসিগ বিশ্ববিদ্যালয় ক্লিনিকের চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডা. ইয়েন্স ডাওজিনস্কি৷

৩. বই পড়তে যথেষ্ট আলো
পড়াশোনার সময় যেন ঘরে যথেষ্ট আলো থাকে৷ কারণ আলো কম হলে চোখের পেশিগুলোতে অনেক বেশি চাপ পড়ে৷ এর ফলে অনেক সময় মাথা ব্যথা বা চোখে লালভাব বা চোখকে লাল দেখায়৷

৪. যথেষ্ট পানি পান
চোখের নিজস্ব পানি সংবেদনশীল চোখকে বাইরের ধুলোবালি থেকে পরিষ্কার রাখতে ও চোখের অসুখ থেকে দূরে রাখতে সাহায্য করে৷ তাই চোখের পানি বজায় রাখতে শরীরে যথেষ্ট পরিমাণ পানি থাকা প্রয়োজন৷ অর্থাৎ এর জন্য দিনে কমপক্ষে দুই লিটার পানি পান করতে হবে৷ কারণ শুষ্ক চোখেই দেখা দেয় নানা সমস্যা৷

৫. অতিরিক্ত সূর্যের তাপ থেকে দূরে থাকুন
সূর্যের অতি বেগুনিরশ্মি চোখের জন্য ক্ষতিকর৷ তাই বেশি রোদে যাওয়ার সময় অবশ্যই ‘আলট্রা ভায়োলেট রে’ থেকে সুরক্ষা দেয়, এমন সানগ্লাস ব্যবহার করবেন৷ এতে চোখে ছানি পড়ার ঝুঁকিও কমবে৷

৬. গাজর রাতের অন্ধত্ব কমায়
শরীরে বিটা ক্যারোটিনের অভাব হলে রাতে মানুষ কম দেখে৷ তাই নিয়মিত গাজর খাবেন৷ কারণ গাজরে রয়েছে যথেষ্ট বিটা ক্যারোটিন৷ তবে হ্যাঁ, গাজর সামান্য তেল দিয়ে মেখে নিলে শরীর তা আরো সহজভাবে গ্রহণ করতে পারে৷ দিনে অবশ্য মাঝারি সাইজের একটি গাজরই কিন্তু যথেষ্ট!

৭. সবুজ সবজি
সবুজ সবজিতে থাকা লুটেইন চোখের অসুখকে দূরে রাখতে সাহায্য করে৷ বিশেষকরে বয়স বাড়ার সাথে সাথে চোখের যেসব সমস্যা দেখা দেয়, তা থেকে৷ তবে প্রতিদিন ১৫০ গ্রাম সবুজ সবজিই চোখের স্বাস্থ্যের জন্য যথেষ্ট৷

৮. সামুদ্রিক মাছ
মাছের ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড চোখের সুরক্ষায় বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ৷ সোজা কথা, অল্প বয়সে চোখের স্বাস্থ্যে দিকে ভালোভাবে নজর দিলে পরে তার ফল অবশ্যই পাওয়া যায়৷ এক্ষেত্রে সপ্তাহে দুই বা তিনদিন মাছ খাওয়া যেতে পারে৷

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *