ভারতের তামিলনাড়ুর প্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম জয়ললিতাকে অন্তবর্তী জামিন দিয়েছেন সেদেশের সুপ্রিম কোর্ট।
আন্তর্জাতিক

জয়ললিতার অন্তবর্তী জামিন

ভারতের তামিলনাড়ুর প্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম জয়ললিতাকে অন্তবর্তী জামিন দিয়েছেন সেদেশের সুপ্রিম কোর্ট।ভারতের তামিলনাড়ুর প্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম জয়ললিতাকে অন্তবর্তী জামিন দিয়েছেন সেদেশের সুপ্রিম কোর্ট।

শুক্রবার নয়া দিল্লির সুপ্রিম কোর্ট সংহিংসতা থেকে দুরে থাকার শর্তে তাকে অন্তবর্তী জামিনের আদেশ দেয়।

 শুভদিনেই এলো আনন্দ সংবাদ। এআইএডিএমকে-র প্রতিষ্ঠাদিবসে জামিন পেলেন ভারতের তামিলনাড়ুর সাবেক মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম জয়ললিতা। আম্মার জামিনের খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে খুশিতে মেতে উঠেছেন এআইএডিএমকে সমর্থকরা।
হিসাব বহির্ভূত সম্পত্তির মালিকানা মামলায় এআইএডিএমকে সুপ্রিমো জয়ললিতাকে চার বছরের কারাদণ্ড দেয় সুপ্রিম কোর্ট। বেঙ্গালুরুর পারাপ্পানা অগ্রহার জেলে তার ঠাঁই হয়। কর্নাটক হাইকোর্টে এর আগে জামিনের আবেদন করেও লাভ হয়নি নেত্রীর। এবার সুপ্রিম কোর্টে ফের আবেদন জানানোর পর শুক্রবার সকালে তার অন্তর্বর্তী শর্তাধীন জামিন মঞ্জুর হয়েছে।
এদিন শীর্ষ আদালতে ডায়াবেটিস, সেলুলাইটিস, হাইপারটেনশন সহ বিবিধ রোগে আক্রান্ত ৬৬ বছরের নেত্রীর তরফে জামিনের আবেদন জানান তার আইনজীবী তথা সংবিধান বিশেষজ্ঞ নরি ফালিম্যান। আবেদনে আরো বলা হয়, কর্নাটক হাইকোর্ট যেহেতু আপাতত ১৯৮৬ সাল থেকে অপরাধের খতিয়ান বিচারে ব্যস্ত, সেই কারণে জয়ললিতার জামিনের আবেদন শুনতে তার কারাবাসের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এই যুক্তি দর্শিয়ে আম্মার জামিনের জন্য অনুরোধ জানান নারিম্যান।

ইতোপূর্বে কর্নাটক উচ্চ আদালতে তার জামিন আবেদন নাকচ করা হহলে সংবিধান বিশেষজ্ঞ আইনজীবী ফলি নরিমান সুপ্রিম কোর্টে একই দাবি পুনরায় উত্থাপন করেন। অতঃপর আদালত ৬৬ বছর বয়েসী এ নেত্রীর বয়স ও শারীরিক পরিস্থিতি আমলে এনে জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন।

জনপ্রিয় ও প্রৌঢ়া নেত্রী ডায়বেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, আভ্যন্তরীণ যোজককলায় প্রদাহসহ একাদিক শরীরিক অসুস্থতায় ভুগছেন।

জয়ললিতার কর্নাটক উচ্চ আদালতে তার জামিনের আবেদন নাকচ হওয়া সম্পর্কে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, সেখানে এখনও ২০০৬ সালে তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অপরাধ মামলার শুনানী চলছে। যে কারণে সর্বশেষ মামলার ‍বিরুদ্ধে উত্থাপিত জামিনের আবেদন আগামী ৪ বছরেও বিবেচনার আওতায় সম্ভব হবে না। এ অবস্থায় সুপ্রিম কোর্ট জামিন নামঞ্জুর স্থগিত করতে পারে।

চলতি বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর জয়ললিতার বিরুদ্ধে ব্যাঙ্গালোরের আদালতে অবৈধ উপায়ে সম্পদ আহরণের একটি মামলা হয়, যার বিপরীতে পরবর্তীতে জয়ললিতাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেয় আদালত। অভিযোগ অনুসারে ১৯৯১ থেকে ১৯৯৬ সাল অব্দি প্রথম মুখ্যমন্ত্রীত্বকালে ঐ সম্পদ আহরণ করেছিলেন জয়ললিতা।

আগামী ২০১৬ সালে তামিল নাড়ুতে আবারও মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এবং মামলা হতে জয়ললিতা অব্যাহতি না পেলে জয়ললিতা তাতে অংশ নিতে পারবেন না।

 

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *