জুবিন ঘোষের কবিতা

জুবিন ঘোষের কবিতা

750
0
SHARE

কুকুরের ভালোবাসা

-জুবিন ঘোষ

কেউ ভালোবাসলে তাকে কুকুর হতে দিতে নেই ।

কুকুর পা চাটে, কুণ্ডলী পাকিয়ে ঘুমিয়ে পড়ে

মাঝে মাঝে প্রভুর কাছে ফিরে যায়

ল্যাজ নাড়িয়ে জানান দেয়–সে আছে ।

কিন্তু যেহেতু এখন সে চারপায়ে হাঁটে বলে

আগের মতো তোমায় দু’হাত দিয়ে জড়িয়ে ধরতে পারে না

তার গন্ধে তোমার নাক সিঁটকোবে

খাবার টেবিলে বসার আগে মনে হবে –

একবার হাত ধুয়ে নিই ,

বিছানায় নিয়ে শুতে গেলে মনে পড়বে ভাদ্রমাসের কথা !

আর তুমিও কোনও যুধিষ্ঠির নও, যে –

শেষ পর্যন্ত কুকুর তোমার পেছনে যাবে !

কেউ ভালোবাসলে তাকে কুকুর হতে দিতে নেই ।

তাকে মানুষের মতোই রাখো ।

#

যে একবার যায়, সে বারবার যায়, তাকে বাধা দিতে নেই ।

আসলে তার যাবারই ছিল…

jubin-ghosh-poems

অনন্য মানুষ

-জুবিন ঘোষ

আরণ্যক বলে যে শব্দ আছে এই দ্বন্দ্ব ঠিক তার সঙ্গে –

#

জানি না কিভাবে সব কিছুতে চলে আসে ফ্রয়েডিও তত্ত্ব । আমি সেদিন প্রথম শুনলাম ডিমের কাহিনি আর পরদিন ঐশ্বরিককণাকে পেয়ে বুঝতে পারলাম কিছুতেই তোমায় নির্ভারভাবে পেতে পারি না । অনন্য মানুষ , আমি জানি না কোনো সামুদ্রিক মাছ তোমার আঁচলে নামলে ঠিক কতখানি লাফাবে; সেটা না জেনেই নিপুণ তোমার থেকে তুলে নিচ্ছি কিছু অমেয় উপাদান – একে বোধ বোলো বা ভাব । আসলে সৃষ্টির সেই ডিমটায় কে যেন আগেই ভবিতব্য লিখে দিয়েছিল সেটা শুধু কোনো মৎস্য উপজাতি বা সরিসৃপই ফোটাবে । আমরা স্তন্যপায়ী বলে তাদের মতো মিষ্টি জলে আসব না, খুঁজে নেবো না কোনও গর্ত । এইভাবে অনন্য মানুষ , ঠিক এইভাবে অসংখ্য শারীরবৃত্তিয় ক্রিয়া নিয়ন্ত্রিত হয়ে আছে জৈবনিক । কে বা কারা করেছে জানি না । আমরা গাল ভরা নাম দিয়েছি সেরিব্রাস্পাইনাল । এই মেনস্ট্রিম থেকে বেরিয়ে আসার উপায় আমি আমি জানি না , জানলে আমি তৎক্ষণাৎ বলতাম একবার সত্যিকারের সিজিওফেনিয়ায় যেতে চাই , উচ্চারণ করতে চাই সেই সব যা শুনলে গা রি-রি করে ওঠে; অথচ আমার তখন কিছু এসে যাবে না । আমি দেখতে চাই তুমি সেই অমোঘ সত্যের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে কতটা আবেগহীন থাকো ।
#
আপাতত হেসে নাও ; আমি জানি অনন্য মানুষ , আর কিছুদিন পরেই পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে নির্ধারিত হবে আদি ভরের সত্য, তখন ঠিক তুমি ও তোমাদের নিঃসঙ্গ ইলেকট্রন জোড় দেখবে একাকী সন্ধিগত পরিহাসের দাঁত !

Comments

comments