জিয়ার ভাইয়ের মিলাদে যাননি বিএনপি নেতারা

জিয়ার ভাইয়ের মিলাদে যাননি বিএনপি নেতারা

জিয়ার ভাইয়ের মিলাদে যাননি বিএনপি নেতারা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ছোট ভাই আহমেদ কামালের মিলাদকে ঘিরে রাজনৈতিক অঙ্গনে নানা আলোচনা চলছিল। মিলাদে শতাধিক মানুষ উপস্থিত হন। জিয়াউর রহমানের পরিবারের এটাই এ ধরনের প্রথম উদ্যোগ ছিল। তবে এখানে বিএনপির কোনো নেতাকে দেখা যায়নি।

মিলাদ অনুষ্ঠানে মঞ্চে আহমেদ কামাল চেয়ারে বসে অংশ নেন। মঞ্চের পেছনে একটি ব্যানার ছিল, তাতে তার বাবা মনছুর রহমান, মা জাহানারা খাতুন, বড় ভাই রেজাউর রহমান, মেজ ভাই জিয়াউর রহমান, সেজ ভাই মিজানুর রহমান, ছোট ভাই খলিলুর রহমান এবং জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর ছবি ছিল। আহমেদ কামালের ছবিও ছিল ব্যানারে।

আহমেদ কামাল বলেছেন, রাজনীতিতে আসলে তিনি সবাইকে জানিয়েই আসবেন।

তিনি বুধবার বিকেলে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে এক দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে একথা বলেন।

জিয়াউর রহমানসহ তার পরিবারের মৃত সদস্যদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় আহমেদ কামাল এই দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের অয়োজন করেন।

তিনি বলেন, ‘এ অনুষ্ঠানটা একান্তই আমাদের পারিবারিক মিলাদ মাহফিল। এটাকে অন্যভাবে না দেখার জন্য সকলকে অনুরোধ করছি। তবে যদি কোনো দিন রাজনীতিতে আসি, আপনাদের সবাইকে জানিয়ে আসব।’

চিরকুমার আহমেদ কামাল বলেন, ‘বর্তমান সরকার দেশে যে গণতন্ত্রের কথা বলছে, এটা গণতন্ত্র নয়। এখন একনায়কতন্ত্র চলছে।’

এই নাজুক পরিস্থিতিতে দেশের মঙ্গলের জন্য সঠিক ও সুস্থ ধারার রাজনীতি এবং গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আহমেদ কামাল বলেন, ‘মিলাদ মাহফিল আয়োজন করার পেছনে ছোট একটা তাগিদ বোধ করছিলাম। আপনারা জানেন কিছুদিন আগে হঠাৎ করে আমি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ছিলাম। কিন্তু সমগ্র দেশবাসী ও আপনাদের দোয়ায় এবং আল্লাহ পাকের ইচ্ছায় সুস্থ হয়ে ফিরে এসেছি।’

তিনি বলেন, সুস্থ হওয়ার পর থেকেই আমার মরহুম পিতা মনছুর রহমান, মাতা জাহানারা খাতুন ও ভাইদের এবং পরিবার বর্গের আত্মার মাগফিরাতের জন্য দোয়া মাহফিল আয়োজন করার তাগিদ বোধ থেকেই এই মাহফিলের আয়োজন করেছেন।

একই সঙ্গে বিএনপি এবং সুধী সমাজের অনেকের ফোন নম্বর ও ঠিকানা না পাওয়ায় দাওয়াত দিতে পারেননি বলে দুঃখও প্রকাশ করেন জিয়াউর রহমানের একমাত্র জীবিত ভাই আহমেদ কামাল।

মিলাদ উপলক্ষে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের বাইরে পুলিশ তল্লাশি চৌকি বসায়। ভেতরে-বাইরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সাদা পোশাকের সদস্যদেরও ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। দোয়া মাহফিলের পর তবারকেরও বিতরণ করা হয়।

জিয়ার গড়া দলে স্ত্রী খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যদের সক্রিয়তা দেখা গেলও কখনো দেখা যায়নি তার নিজের পরিবারের সদস্যদের।

গত ২৫ জুলাই আহমেদ কামাল অসুস্থ হয়ে বারডেম হাসপাতালে ভর্তি হন। তখন বিএনিপর স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন তাকে দেখতে যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *