৭১ সালে ভিন্ন মতাবলম্বীদের নিধনের জন্যই মুজিব বাহিনী তৈরি করা হয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
জাতীয়

‘জাতিসত্তা নিশ্চিহ্নের ষড়যন্ত্র হচ্ছে’

৭১ সালে ভিন্ন মতাবলম্বীদের নিধনের জন্যই মুজিব বাহিনী তৈরি করা হয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।৭১ সালে ভিন্ন মতাবলম্বীদের নিধনের জন্যই মুজিব বাহিনী তৈরি করা হয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় জাতিকে মেধাশূন্য করার জন্য বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করা হয়েছিল। ৪৩ বছর পর আবার নতুন করে ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। বর্তমান সরকার একইভাবে গুম খুনের মাধ্যমে জাতিসত্তা নিশ্চিহ্ন করে দেয়ার পাঁয়তারা করছে। গণতন্ত্র, মানবাধিকার ও জাতিসত্তা রক্ষায় বিএনপির  চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ডাকে আন্দোলনে শরিক হওয়ার জন্য দেশের সকল বুদ্ধিজীবীদের আহ্বান জানান তিনি।

আজ বিকালে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে বিএনপি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। মির্জা আলমগীর বলেন, শুধু ১৪ই ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করা হয়নি। হত্যা করা হয়েছে ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ থেকে নয় মাসব্যাপী। ৭১ সালে যারা আওয়ামী লীগ করে নাই, ভিন্নমত পোষণ করেছেন তাদেরকে হত্যা করার জন্য মুজিব বাহিনী তৈরি করা হয়ে ছিল। আর যাতে প্রমাণিত হয়েছে তাদের রাজনৈতিক নেতৃত্ব বাংলাদেশের স্বাধীনতা চায়নি।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, আওয়ামী লীগ লজ্জা শরম হায়াহীন অথচ মুখে গণতন্ত্রের কথা বলে। তারা প্রতিটি ক্ষেত্রে ব্যর্থ হয়েছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এম কে আনোয়ার বলেন, আজকে যারা নিজেদের মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি দাবি করেন সেই আওয়ামী লীগ একাত্তর সালে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেননি। তাদের কেউ কেউ পাকিস্তানিদের কাছে আত্মসমর্পণ করে পাকিস্তানে আবার কেউ বা ভারতে চলে গিয়েছিল। কিন্তু বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান জীবন বাজি রেখে দেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন এবং রণাঙ্গনে মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব দেন। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারকে অনির্বাচিত সরকার দাবি করে তিনি বলেন, তারা নির্বাচন ছাড়া সরকার গঠন করে ক্ষমতার জোরে জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। আর এখন প্রশ্নপত্র ফাঁস ও পরীক্ষায় পাসের হার বাড়িয়ে দিয়ে জাতিকে নতুন করে মেধাশূন্য করা হচ্ছে।

বিএনপির প্রচার সম্পাদক জয়নুল আবদীন ফারুকের সঞ্চালনায় বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শওকত মাহমুদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর এমাজউদ্দিন আহমেদ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর খন্দকার মোস্তাহিদুর রহমান প্রমুখ আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *