সমবেদনা জানাতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশানের কার্যালয়ের সামনে গেলেও ভেতরে প্রবেশ করেননি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
জাতীয়

খালেদা জিয়ার সাথে দেখা হল না প্রধানমন্ত্রীর

সমবেদনা জানাতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশানের কার্যালয়ের সামনে গেলেও ভেতরে প্রবেশ করেননি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সমবেদনা জানাতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশানের কার্যালয়ের সামনে গেলেও ভেতরে প্রবেশ করেননি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। খালেদা জিয়ার কার্যালয়ের গেটটি খোলা হয়নি। বিএনপির কোনো নেতাও প্রধানমন্ত্রীকে ভেতরে নেয়ার জন্য এগিয়ে আসেননি। ফলে প্রধানমন্ত্রী গেট থেকেই গণভবনে ফিরে যান।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতারাও সেখানে ছিলেন। রাত আটটা ৩৫মিনিটের দিকে প্রধানমন্ত্রীর গাড়ি বহর সেখানে পৌঁছে।

তবে প্রধানমন্ত্রী সেখানে পৌঁছার কিছুক্ষণ আগে খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারি শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস জানান, খালেদা জিয়া অসুস্থ হওয়ায় তাকে ইনজেকশন দিয়ে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হয়েছে। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। খালেদা জিয়া ঘুম থেকে জাগলে তা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে জানানো হবে এবং তখন প্রধানমন্ত্রী ইচ্ছা পোষণ করলে আসতে পারবেন।

প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার গুলশানের কার্যালয়ে পৌঁছার পর তার গাড়িবহর সেখানে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে। এসময় প্রধানমন্ত্রী গাড়ি থেকে নেমে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এসময় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু ও তোফায়েল আহমেদ খালেদা জিয়ার কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। এরপরই প্রধানমন্ত্রীর গাড়ি বহর গণভবনের উদ্দেশে রওনা হয়।

গাড়ি বহর ওই এলাকা ত্যাগ করার পর প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, সম্পূর্ণ মানবিক কারণে প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে সমবেদনা জানাতে এসেছিলেন। এ ঘটনায় গণমাধ্যমের কাছে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী। তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী নিজে আসার পরও দরজা না খোলা ভদ্রোচিত নয়। রাজনৈতিক শিষ্ঠাচার নয়। বিষয়টিকে অমানবিক হিসেবে উল্লেখ করেন ইকবাল সোবহান চৌধুরী।

উল্লেখ্য, দুপুরে মালয়েশিয়ায় মারা গেছেন খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকো। সকালে বুকে ব্যথা অনুভব করলে হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

সর্বশেষ বিশিষ্ট বিজ্ঞানী ও শেখ হাসিনার স্বামী ড. ওয়াজেদ মিয়ার মৃত্যুতে ২০০৯ সালের ৯ মে সমবেদনা জানাতে ধানমণ্ডির সুধা সদনে গিয়েছিলেন খালেদা জিয়া। সেখানে দুই নেত্রীর মধ্যে কথা হয়। এরপর গত ২৬ অক্টোবর অবশ্য ফোনে তাদের কথা হয়েছিল কিন্তু সেটা মোটেও উষ্ণ ছিল না।

শিরোনাম ডট কম
শিরোনাম ডট কম । অনলাইন নিউজ পোর্টাল Shironaam Dot Com । An Online News Portal
http://www.shironaam.com/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *