খাঁটি মধু চেনার ৯ উপায়

খাঁটি মধু চেনার ৯ উপায়

আপনি জানেন কি সাধারন তাপমাত্রায় খাঁটি মধু কখনোই নষ্ট হয় না? এমনকি চার হাজার বছর পর্যন্ত খাঁটি মধু ভক্ষণযোগ্য থাকতে পারে। আসুন জেনে নেওয়া যাক খাঁটি মধু চেনার ৯ উপায়।

১। ফ্রিজিং পরীক্ষা
মধুকে ফ্র্রিজের মধ্যে রেখে দিন। খাঁটি মধু জমবে না। ভেজাল মধু পুরাপুরি না জমলেও জমাট তলানী পড়বে।

২। পিঁপড়া পরীক্ষা
এক টুকরা কাগজের মধ্যে কয়েক ফোঁটা মধু নিন। তারপর যেখানে পিঁপড়া আছে সেখানে রেখে দিন । পিঁপড়া যদি মধুর ধারে কাছে না ঘেসে তবে তা খাঁটি মধু। আর পিঁপড়া যদি তা পছন্দ করে তবে মধুতে ভেজাল আছে।

৩। চক্ষু পরীক্ষা
খুব অল্প পরিমাণ মধু চোখের ভেতরে দিন । যদি মধু খাঁটি হয় তবে প্রথমে চোখ জ্বালাপোড়া করবে ও চোখ থেকে পানি বের হবে এবং খানিক পরে চোখে ঠান্ডা অনুভূতি হবে। (এই পরীক্ষা অনুৎসাহিত করছি)

৪। দ্রাব্যতা পরীক্ষা
এক গ্লাস পানি নিয়ে এর মধ্যে এক টেবিল চামচপ রিমাণ মধু নিন। খুব ধীরে ধীরে গ্লাসটি শেক করুন । যদি মধু পানিতে পুরাপুরি দ্রবীভূত হয়ে যায় তবে তা ভেজাল মধু। আর মধু যদি পানিতে ছোট ছোট পিন্ডের আকারে থাকে তবে তা খাঁটি মধু।

৫। মেথিলেটেড স্পিরিট পরীক্ষা
সমান অনুপাতে মধু এবং মেথিলেটেড স্পিরিট মিশ্রিত করে নাড়াতে থাকুন। খাঁটি মধু দ্রবীভুত না হয়ে তলনীতে জমা হবে । আর ভেজাল মধু দ্রবীভূত হয়ে মেথিলেটেড স্পিরিটকে মিল্কি করবে।

৬। শিখা পরীক্ষা
একটি কটন উইগ নিয়ে এক প্রান্তকে মধুর মধ্যে ডুবিয়ে নেই। তারপর উঠিয়ে হালকা শেক করে নিই। একটি মোমবাতি জ্বালিয়ে বা লাইটার জ্বলিয়ে তা আগুনের শিখায় ধরি। যদি তা জ্বলতে থাকে তবে মধু খাঁটি আর যদি না জ্বলে তবে মধুতে পানি মেশানো আছে। যদি মধুতে অল্প পরিমাণ পানি মেশানো থাকে তবে কটন উয়িক জ্বলতে থাকবে কিন্তু ক্র্যাকলিং সাউন্ড শোনা যাবে।

৭। শোষণ পরীক্ষা
কয়েক ফোঁটা মধু একটি ব্লটিং পেপারে নিন ও পর্যবেক্ষণ করুন। খাঁটি মধু ব্লটিং পেপার কর্তৃক শোষিত হবে না। ভেজাল মধু ব্লটিং পেপারকে আর্দ্র করবে।

৮। কলংক পরীক্ষা
একটুকরা সাদা কাপড়ের উপর সামান্য পরিমাণ মধু নিন এবং এবং কিছুক্ষন পর কাপড়টি ধৌত করুন । ধোয়ার পর কাপড়টিতে যদি কোন দাগ থাকে তবে মধুতে ভেজাল আছে । আর যদি কোন দাগ না থাকে তবে মধু খাঁটি ।

৯। হানিকম্ব পরীক্ষা
একটি কাঁচের বা সাদা রংয়ের বোলের মধ্যখানে দেড় থেকে দুই চা চামচ (প্লস্টিকের তৈরি) মধু নেই। তারপর বোলের চারদিক দিয়ে ধীরে ধীরে ঠান্ডা পানি ঢালতে থাকি। যখন পানি মধুকে ঢেকে ফেলবে তখন পানি ঢালা বন্ধ করি। তারপর বোলটিকে তুলে ধরে ঘড়ির কাঁটার বিপরীত দিকে দুই মিনিট ধরে ঘুরাতে থাকি। খাঁটি মধু এই মুভমেন্টের পরেও পানিতে দ্রবীভূত হবে না এবং হেক্সাগোনাল আকৃতি ধারণ করবে যা দেখতে প্রায় হানিকম্ব এর মত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *