১০ প্রার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ

নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে শনিবার ১০ প্রার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে শনিবার ১০ প্রার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিন্ড বজায় রাখতে সম্ভাব্য প্রার্থীদের আগাম প্রচার না করার জন্য অনুরোধ করেছেন দক্ষিণের রিটার্নিং কর্মকর্তা মিহির সরওয়ার মোর্শেদ।

এ ছাড়া নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে শনিবার ১০ প্রার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চে নিজ কার্যালয়ে শনিবার দুপুরে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান।

মিহির বলেন, ‘আমরা দেখছি, অনেক প্রার্থী আগাম প্রচার চালাচ্ছেন, যেগুলো আচরণ বিধির লঙ্ঘন। আগাম প্রচার করলে নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বজায় থাকে না। লেভেল প্লেয়িং ফিন্ড বজায় রাখতে দয়া করে আপনারা আগাম প্রচারণা চালাবেন না।’

ভোট গ্রহণের ২১ দিন আগে প্রচারণা না চালানোর অনুরোধ করে তিনি বলেন, ‘প্রতীক বরাদ্দের পর নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে পারবেন।’

সিটি করপোরেশন আচরণ বিধিমালা অনুযায়ী কোনো প্র্রার্থী বা তার পক্ষ থেকে অন্য কোনো ব্যক্তি ভোটগ্রহণের জন্য নির্ধারিত তারিখের ২১ দিন আগে কোনো নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করতে পারবেন না।

বিধি অনুসারে, ভোটগ্রহণ দিন থেকে আগের ২১ দিন প্রার্থীরা প্রচারণা চালাতে পারবেন। তবে সেখানে প্রার্থীর ছবি ও দলীয় প্রতীক এবং দলের নাম ব্যবহার করতে পারবেন না। প্রার্থীদের ভোটগ্রহণের ৩২ ঘণ্টা আগে প্রচারণা বন্ধ করতে হবে।

প্রার্থীদের নির্বাচনী আচরণ বিধি মেনে চলার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘তাদের আচরণ বিধি মেনে চলার ওপরই নির্বাচনের শৃঙ্খলা নির্ভর করে। ইসি চায় একটি নিরপেক্ষ সুষ্ঠু নির্বাচন।’

বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীদের প্রকাশ্যে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর জন্য ইসির পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আইন বিধি ও জেল কোড অনুসারের সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এই রিটানিং কর্মকর্তা বলেন, ‘আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে আমরা এ পর্যন্ত ৭৮ জনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছি। এর মধ্যে আজকে (শনিবার) ১০ জনকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। তাদের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে।’

মিহির সরওয়ার মোর্শেদ বলেন, ‘১০ দিনে ৩০ জন মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এ ছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১ হাজার ৪১ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১৯৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। তাদের মধ্যে মেয়র ২ জন, সাধারণ কাউসিন্সলর ৯ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ২ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।’

এদিকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে শনিবার পর্যন্ত মেয়র পদে ২ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ২ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

তফসিল অনুযায়ী প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ২৯ মার্চ, যাচাই-বাছাই ১ ও ২ এপ্রিল এবং মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ৯ এপ্রিল নির্ধারণ করা হয়েছে। ২৮ এপ্রিল এ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *